আ‘লীগ নেতার ভবনের কার্নিশে শিশু শ্রমিকের লাশ!

সিদ্ধিরগঞ্জ(আজকের নারায়নগঞ্জ):   সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি এলাকায় ১৩২ কেভি (১ লাখ ৩২ ভোল্টের) উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন বৈদ্যুতিক তারের স্ফুলিঙ্গের আগুনে ঝলসে গিয়ে একটি প্রিন্টিং কারখানায় সানজিদা আক্তার মুন্নী (১৫) নামে শিশু শ্রমিক নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় সোভা আক্তার (১৫) নামে অপর এক শিশু শ্রমিক আহত হয়েছে।
বুধবার (১ আগস্ট) বেলা পৌঁনে ২টায় সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবুর রহমানের মালিকাধীন ভবনে অবস্থিত সততা প্রিন্টিং নামে কারখানায় ঘটনাটি ঘটে। কারখানাটির মালিক শাহজাহান। তিনি ভাড়া নিয়ে প্রতিষ্ঠানটি পরিচালনা করে আসছেন। ঘটনাটির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুস সাত্তার মিয়া।
জানা গেছে, সানজিদা আক্তার মুন্নী ও শোভা আক্তার দুপুরের খাবার খাওয়ার সময় ভবনের ছাদে উঠে। এ সময় ১৩২ কেভি (১ লাখ ৩২ হাজার) সিদ্ধিরগঞ্জের বিদ্যুতের সঞ্চালন লাইনের তারের স্পার্কের (স্ফুলিঙ্গের) আগুনে মুন্নীর সারা শরীরের ঝলসে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই মুন্নী মারা যায়। একই ঘটনায় আরেক শ্রমিক শোভা গুরুতর আহত হয়। তাকে নগরীর খানপুরের ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতলে ভর্তি করা হয়েছে।
সততা প্রিন্টিং কারখানার সুপারভাইজার মোফাজ্জল হোসেন জানান, দুপুরের খাবারের সময় একটি বিকট শব্দ পাই। পরে ছাদে গিয়ে দেখি মুন্নীর সারা শরীর ঝলসানো। সে ঘটনাস্থলে মারা যায়। আরেক শ্রমিককে আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবুর রহমান জানান, ভবনটির কয়েকটি ফ্লোর সততা প্রিন্টিং নামে কারখানার মালিক শাহজাহানের নিকট ভাড়া দেয়া হয়েছে।
সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) কামরুল ইসলাম জানান, ওই গার্মেন্টসের ভবনের ছাদের এক পাশ দিয়ে উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন বিদ্যুতের একটি লাইন প্রবাহিত হয়েছে। ওই তারের বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মুন্নীর সারা শরীর ঝলসে যায়। এতে সে ঘটনাস্থলে মারা যায়। এ ঘটনায় আরো এক নারী শ্রমিক আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছে।