বন্দরে চাঁদাবাজির মামলায় গ্রেফতার ৩ চাঁদাবাজ

বন্দর(আজকের নারায়নগঞ্জ):  ৬০ লাখ টাকা চাঁদাবাজীর অভিযোগে না দেওয়ায়  ৩ চাঁদাবাজকে গ্রেপ্তার করেছে বন্দর থানা পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো বন্দর উইসন রোড ভূঁইয়া বাড়ী এলাকার মাছুম দেওয়ানের সন্ত্রাসী ২ ছেলে নেওয়াজ শরীফ (২৮) সিয়াম (২৬) একই এলাকার তাবারুক দেওয়ান মিয়ার ছেলে অপর চাঁদাবাজ বাপ্পী (২৭)।

গত ২৯ জুলাই বিকেল ৩টায় বন্দর থানাধনী ২২নং ওয়ার্ডস্থ লেজার্স এলাকায় এ চাঁদা দাবিতে এ সন্ত্রাসী হামলার ঘটনাটি ঘটে।

চাঁদাবাজদের হামলায় বাড়ী মালিকসহ ৩ জন গুরুত্বর আহত হয়েছে। আহতরা হলো বাচ্চু মোল্লা (৫৫) সেলিম মোল্লা (৪৩) ও মোসাদ্দেক (৩৮)।  স্থানীয় এলাকাবাসী আহতদের উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করে।

এ ব্যাপারে আহত বাচ্চু মোল্লা প্রাথমিক চিকিৎসা গ্রহন করে গত ৩০ জুলাই সোমবার বন্দর থানায় জাপা নেতা ছেলেসহ ৭ জনকে আসামী করে বন্দর থানায় মামলা দায়ের করেন।

যার মামলা নং- ৬৫(৭)১৮ ধারা- ১৪৩/ ৩৮৫/ ৩২৩/ ৩২৬/ ৩০৭/ ৩৭৯/ ৫০৬/ ৩৪ দঃবিঃ।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, বন্দর থানার একরামপুর এলাকার মৃত আব্দুল মান্নাফ মোল্লা মিয়া ছেলে বাচ্চু মোল্লার ছোট ভাই শওকত মোল্লা বিগত ১০ বছর পূর্বে বন্দর থানাধীন লেজার্স সাকিনস্থ গঙ্গাকুল ম খন্ড মৌজাস্থ ৪ শতাংশ জায়গা ক্রয় করে।
পরে ক্রয়কৃত সম্পত্তী উপর একটি তিন তলা ভবন নির্মান করে স্ত্রীসহ বসবাস করে আসে। পরবর্তী সময়ে বাচ্চু মোল্লা ছোট ভাই শওকত মোল্লা সিঙ্গাপুর প্রবাসে যাওয়ার সময় তার স্ত্রী মাসুমা নাজমিন প্রিয়াংকা উক্ত বাড়ীতে বসবাস করে।

পরে প্রবাসী শওকত মোল্লা সাথে তার স্ত্রী মাসুমা নাজমিনের বনিবনা না হলে এ ঘটনায় শওকত মোল্লা মাছুমা নাজমিনকে ডির্ভোস দেন।

এ ঘটনায় ছোট ভাই শওকত মোল্লা উক্ত বাড়ীটি রেজিষ্ট্রি পাওয়ার মূলে বড় ভাই বাচ্চু মোল্লাকে প্রদান করেন।

বাচ্চু মোল্লা বিভিন্ন সময়ে ভাড়াটিয়াদের নিকট হইতে ভাড়া উত্তেলন করতে গেলে বন্দর উইলসন রোড দেওয়ানবাড়ী এলাকার মৃত আক্কাস দেওয়ান মিয়ার ছেলে মাছুম দেওয়ান ও তার ২ ছেলে নেওয়াজ শরিফ ও সিয়াম তাবারুক দেওয়ানের ২ ছেলে বাপ্পী দেওয়ান ও লিখন দেওয়ান এবং ভূইয়াবাড়ী এলাকার জিন্নাহ ভূইয়া মিয়ার ছেলে শুভ ও লেজার্স এলাকার রাজনসহ অজ্ঞাত ৪/৫ জন র্দীঘ দিন ধরে ৬০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে।

এর প্রেক্ষিতে ২৯ জুলাই বিকেলে ৩টায় বাচ্চু মোল্লা তার ছোট ভাই সেলিম মোল্লা ও বোন জামাই মোসাদ্দেক ভাড়াটিয়াদের সাথে কথা বলার সময় উল্লেখিত চাঁদাবাজরা ক্ষিপ্ত হয়ে তাদের বেদম মারপিট করে রক্তাক্ত জখম করে।

ওই সময় হামলাকারিরা নগদ ৭ হাজার ৫’শ টাকা ও ১টি মোবাইল সেট ছিনিয়ে নেয়। এ ব্যাপারে থানায় মামলা দায়ের করা হলে পুলিশ ৩ চাঁদাবাজকে গ্রেপ্তার করে যথাযথ নিয়েমে আদালতে প্রেরণ করেছে ।