‘ডিসি রাব্বী ভবন’ উদ্বোধন করলেন পত্নী নাজমুন নাহার

নগর সংবাদ(আজকের নারায়নগঞ্জ):  নারায়ণগঞ্জ প্রিপারেটরী স্কুলের নবনির্মিত ৩য় তলা ‘ডিসি রাব্বী ভবন’ উদ্বোধন ৪র্থ তলা নির্মাণ কাজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৩১ জুলাই) সকাল ১১টা নারায়ণগঞ্জ প্রিপারেটরী স্কুল প্রধান শিক্ষক মো. আব্দুল বারীর সভাপতিত্বে ভবনটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন নারায়ণগঞ্জ জেলা মহিলা ক্রীড়া সংস্থা ও লেডিস ক্লাবের সভানেত্রী এবং জেলা প্রশাসকের সহধর্মিনী নাজমুন নাহার। একই অনুষ্ঠানে স্কুলটির মেধা পুরস্কার-২০১৭ শিক্ষার্থীর হাতে তুলে দেয়া হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে নারায়ণগঞ্জ জেলা মহিলা ক্রীড়া সংস্থা ও লেডিস ক্লাব সভানেত্রী নাজমুন নাহার বলেন, জ্ঞানী, পরিশ্রমী, সুর্দশন, আর্দশ পিতা এবং আপনাদের জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া যিনি আমার জীবন সঙ্গী । আমার স্বামীকে নিয়ে আমি গর্ববোধ করি এবং অহংকার বোধ করি। যার কথা বললাম যার উদ্দ্যোগে একটি ভবন নির্মিত হয়েছে তাকে এই কারণে জ্ঞানী বললাম ।

সবাই শিক্ষিত হয় কিন্তু জ্ঞানী নয়। জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়ার মধ্যে জ্ঞান আছেই বলেই এই রকম উদ্দ্যোগ গ্রহণ করে একটি স্কুলের একটি ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। উনার এই কৃতকর্ম সারাজীবন স্বাক্ষী হয়ে থাকবে। উনি হয়তো থাকবে না একদিন, চলে যাবেন। কিন্তু এই ভবন উনার সৃতি হয়ে থাকবে।

তাই তোমাদেরকে (ছাত্র-ছাত্রী) বলছি তোমরাও উনার মত হও। এই শিক্ষা জীবন ছোট বেলা থেকেই গড়ে তোলার সময় । তিনি এই পর্যন্ত এসেছেন এমনি এমনি চলে আসেন নাই। তার বাবা,মা, শিক্ষকদের দোয়ায় এবং কর্মের গুনে এসেছেন।

তাই তোমাদের বলবো তোমরাও তোমাদের বাবা-মা ও শিক্ষককে শ্রদ্ধা করবে। ছোটবেলায় থেকে স্বপ্ন দেখবে। আমাদের এই ছোট জীবে জীবনে বড় হয়ে মানুষের জন্য যাতে কিছু করার কিছু করে যেতে পারি । আমাদের পরবর্তী প্রজন্মের জন্য সেটাই হবে আমাদের জীবনের স্বার্থকতা ।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন , বাবা মার সাথে ভালবাসার সর্ম্পক করতে হবে । সেটা অর্জন করা যায় । যখন তোমরা ভালো অর্জন কর ভালো রেজাল্ট কর তখন মানুষ তার সন্তানের প্রেমে পড়ে।

আমাদের অভিভাবকদেরও তাদের সন্তানের প্রেমে পড়া দরকার যাতে আমাদের সন্তানের ভালো ভালো কাজ করতে পারে, ভালো কিছু অর্জন করতে পারে। বাবা মা তার সন্তারে প্রেমে আসক্ত হয় ।

এখানে আমি আতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ,নির্বাহী মেজিস্ট্রট উপজেলা অফিসার ও শিক্ষক নিয়ে এসেছি তাদের কে নিয়ে এসেছি তার পিছনে কারণ হলো তোমাদের স্বপ্ন দেখানোর জন্য। এক সময় তোমরা লেখা পড়া করে তোমরাও ম্যাজিস্ট্রেট হবে, জেলা প্রশাসক কিংবা ব্যাবসায়ী হবে।

জীবনে প্রতিষ্ঠালাভ করতে হবে এটা এটা তোমাদের সবসময় মনে রাখাতে হবে। যে পরিসরেই থাকো তোমরা এমন নেতৃত্ব দিবে যাতে মানুষ তোমাকে অনুসরন করে, মানুষের কল্যাণে কাজ করার ব্রত নিয়ে কাজ করবে ।

অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( রাজস্ব) মো. জসীম উদ্দিন হায়দান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) রেজাউল বারী, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ( ইউএনও) হোসনে আরাসহ জেলা প্রশাসনের অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।