বেতন না দিয়ে গার্মেন্ট থেকে মালামাল নিয়ে যাবার চেষ্টা : বিক্ষোভ

রূপগঞ্জে ফ্যাক্সিমার্ট বিডি নামক এক গার্মেন্টের কর্মরত শ্রমিকদের ৩ মাসের বকেয়া বেতন না দিয়ে কারখানার বিভিন্ন মালামাল মালিকপক্ষ অন্যত্র নিয়ে যাবার চেষ্টা করলে শ্রমিকরা গার্মেন্টের সামনে মালিক পক্ষের লোকজনকে অবরুদ্ধ করে বকেয়া বেতন ও কারখানা চালুর দাবীতে বিক্ষোভ করে। পরে পুলিশের সহায়তায় সেখান থেকে তাদের উদ্ধার করা হয়। শুক্রবার দুপুরে উপজেলার কাঞ্চন পৌরসভার কাঞ্চন বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

গার্মেন্ট শ্রমিক মিনারা ও রোকসানা জানান, এ গার্মেন্টে দুই শতাধিক নারী পুরুষ কাজ করেন জীবিকা নির্বাহ করেন। গত ফেব্র“য়ারী মাস থেকে এপ্রিল মাস পর্যন্ত টানা ৩ মাস মালিকপক্ষ বেতন দেই, দিচ্ছি বলে টালবাহানা শুরু করে।

বেতনের দাবিতে শ্রমিকরা কয়েকদফা গার্মেন্টের ভিতরে বিক্ষোভও করেছেন। মালিকপক্ষ বহুবার টাকা দিবে বলে শ্রমিকদের তারিখ দেয়। কিন্তু এপর্যন্ত কোন বকেয়া বতেনের টাকা শ্রমিকরা পায়নি।

কিন্তু গত মাসের শেষের দিকে হঠাৎ কাউকে কিছু না জানিয়ে বিনা নোটিশে গার্মেন্ট বন্ধ করে দেয় মালিকপক্ষ। সর্বশেষ স্থানীয় প্রশাসন মালিক পক্ষের সাথে কথা বলে চলতি মাসের ১৫ তারিখে শ্রমিকদের বকেয়া সকল পাওনাদী পরিশোধ করা হবে বলে শ্রমিকদের জানায় ।

এদিকে, শুক্রবার জুমার নামাজের সময় হঠাৎ মলিকপক্ষের লোকজন পিকআপভ্যানে গার্মেন্ট থেকে মালামাল নিয়ে যাবার জন্য গার্মেন্টের ভিতরে প্রবেশ করে।

খবর পেয়ে গার্মেন্ট শ্রমিকরা মালিকপক্ষের লোকজদের অবরুদ্ধ করে রাখে। তারা গার্মেন্টের সামনে বকেয়া বেতন ও গার্মেন্ট চালুর দাবীতে বিক্ষোভ করে। পরে নারায়ণগঞ্জ শিল্পপুলিশ ও রূপগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি শান্ত করে।

এ ব্যাপারে ফ্যাক্সিমার্ট গার্মেন্টের মালিক কবিরুল হাসান মিরাজের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, একটু সমস্যা থাকার কারনে শ্রমিকদের বেতন দিতে দেরী হচ্ছে এবং গার্মেন্ট সাময়িকভাবে বন্ধ করে রেখেছি।

আশাকরি এক সপ্তাহের মধ্যে শ্রমিকদের বকেয়া বেতন পরিশোধ করে কারখানা পুনরায় চালু করবো।

এছাড়া আরএসএইচ ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডের কিছু কাপড় আমার গার্মেন্টে মজুত ছিল। তারা হয়তো সেই কাপড় গুলো নিতে এসেছিল।