আল্লাহ নামেই শান্তি ও মুক্তি

–এমদাদুল হক মিলন

ঝরা পাতার মর্মর ধ্বনি পাখির কলরবে,
ওই নামটা ভেসে আসে নদীর কলতানে।
কিচিরমিচির ডাকে পাখি, পাতার শব্দে,
ঢেউয়ের ছন্দে ছন্দে খোদার নাম দোলে।

সকলের সৃষ্টিকর্তা হলেন আসিন আরশে,
বিচার করবেন নিজেই হাশরের ময়দানে।
পাপ-গুণ সব মাপা হবে দাঁড়িপাল্লা দিয়ে,
হবে না তা গণনা করা একটি একটি করে।

দয়ার সাগর মায়ার সাগর হলো মুহাম্মদ(সঃ),
সেদিন করবেন সাফায়াত হবেন তার উম্মত।
সুরত ধরো কর পালন হুকুম এক আল্লাহর,
শেষ বিচারে মাফ করে নসিব হবে জান্নাত।

মিলন বলে পাগলা মন এবার ধর্ সঠিক ছল,
মুখে রাখ্ সদা জারি দমে জপো আল্লাহর নামি।
ক্ষনিক দুনিয়া অনন্ত জান্নাতে মিলবে তব সুখ,
পালন কর্ প্রভুর হুকুম সময় মেপে মেপে রুকু।

শেষ বিচারে আল্লাহ বিনে কে করবেন মাফ?
রাসূল(সঃ) বিনে নেইতো কেহ করবেন সাফায়াত।
অবুঝ মন আর কতকাল থাকবি সদা ব্যাহুশ,
এবার ফিরাও হুশ তওবা কর্ পালন কর্ হুকুম।

আল্লাহর হুকুমে সর্বসুখ বুঝেন পিয়ারা বান্দা,
সেই আদেশ পালন করলে শীতল হবে আত্মা।
আল্লাহ বিনে চায়না কিছু ভবে পিয়ারা বান্দারা,
তাঁর তরেই সঁপে দিবে সব জান-মাল-সময়টা।

শেষ বিচারে কর মাফ,নসিব কর আল্লাহ জান্নাত,
আমরা তোমার বান্দা আল্লাহ,পাপী গুনাহগার।
গুনার বোঝা ঝেরে দিয়ে কবুল কর খালেস বলে,
তবেই শান্তি, মিলবে সস্তি, দুনিয়া ও পরকালে।