আহমদ শফি ও বাবু নগরীর উপস্থিতিতেই ভেঙ্গে পড়লো মঞ্চ

আজকের নারায়নগঞ্জ ডেস্কঃ কাদিয়ানী সম্প্রদায়কে  অমুসলিম ঘোষনার দাবীতে শনিবার (১ ফেব্রুয়ারি) নারায়নগঞ্জ জেলায় ছিল খতমে নবুওয়াতের ইসলামী সম্মেলন। এ উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানের পশ্চিম দিকে এই ইসলামী মহাসম্মেলনের মঞ্চ করা হয়।

সমাবেশের সময় বাদ জোহর নির্ধারন থোকলেও সকালের দিকেই ঈদগাহ মাঠ কানায় কানায় পরিপূর্ণ হয়ে যায়। পরে বিকেলের দিকে সময় যত গড়িয়েছে মঞ্চের মধ্যে অতিথির সংখ্যাও বেড়েছে। সাড়ে ৪টার দিকে মহাসমাবেশের প্রধান অতিথি আল্লামা আল্লামা শাহ আহমদ শফী মঞ্চে উঠেন। তিনি আসার পর থেকে অতিথিদের সাথে আরো নেতারাও মঞ্চে উঠেন।

এ অবস্থায় বিকেল পৌঁনে পাঁচটার দিকে হঠাৎ মঞ্চ ভেঙে পড়ে। মঞ্চের পেছনে থাকা এলইডি স্ক্রিনটি হঠাৎ ভেঙে পড়ে যায়। তবে এটি যেখানে আছড়ে পড়েছে সেখানে থাকা মানুষরা দ্রুত সরে যাওয়ায় কেউ গুরুতর আহত হয়নি।

এসময় মঞ্চেই ছিলেন হেফাজতে ইসলামের আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফি, মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীসহ অন্যান্যরা। তবে এতে ক্ষতিগ্রস্ত হয় মঞ্চ। মঞ্চটি নিচের দিকে বসে পড়ে।

ওই সময় মঞ্চে থাকা ও এরআশেপাশের লোকজনের মধ্যে হুড়োহুড়ি শুরু হয়। এলইডি স্ক্রিনের ভাঙাচোরা অংশে দূরের কয়েকজন সামান্য আহত হলেও কেউই গুরুতর আহত হয়নি বলে নিশ্চিত করেছেন ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম হোসেন। পরে ভাঙা মঞ্চেই আলোচনা চালিয়ে যাওয়া হয়।

হেফাজতের অন্যতম নেতা মুফতি মাসুম বিল্লাহ জানান, মঞ্চে অতিরিক্ত লোক হওয়ায় আকস্মিকভাবে মঞ্চের পেছনের অংশ ভেঙে পড়ে। তবে শফী হুজুর অক্ষত আছেন। এ সময় সমাবেশকে ঘিরে আতঙ্ক সৃষ্টি হলেও আয়োজকরা তাৎক্ষণিক পরিস্থিতি সামলে নেন।

উল্লেখ্য, কাদিয়ানীদের বিরুদ্ধে খতমে নবুওয়াতের বিশ্বাস অস্বীকার, নবুওয়াত দাবি, নবীগণের সাথে বেয়াদবি ও অশালীন বক্তব্য, মুসলমানদের কাফির বলা ও অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করা ইত্যাদি সহ নানা অভিযোগ উত্থাপন করে আসছে আন্তর্জাতিক মজলিসে তাহাফফুজে খতমে নবুওয়ত বাংলাদেশ। এরই প্রেক্ষিতে এই ইসলামী মহাসমাবেশের ডাক দেয়া হয়।