কাদিয়ানীরা মুসলমান হিসাবে বিভ্রান্ত ছড়াবে, এটা মেনে নেওয়া হবে না: পলাশ

আজকের নারায়নগঞ্জ ডেস্কঃ  হিন্দুরা হিন্দুদের ধর্ম পালন করে, আমরা প্রয়োজনে তাদের নিরাপত্তা দিবো। খ্রিস্টানরা খ্রিস্টানদের ধর্ম পালন করবে, আমরা তাদেরও নিরাপত্তা দিবো। কিন্তু কাদিয়ানীরা মুসলমান ধর্মের নাম ব্যবহার করে বিভ্রান্ত ছড়াবে, এটা মেনে নেওয়া হবে না। তাই কাদিয়ানীদের অমুসলিম ঘোষণা করা হোক। তাদের অমুসলিম ঘোষণা করা হলে, আমরাই তাদের ধর্ম পালনে নিরাপত্তা দিবো। নয়তোবা বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

শনিবার (১ ফেব্রুয়ারি) বিকালে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় ঈদগাহে কাদিয়ানি সম্প্রদায়কে রাষ্ট্রীয়ভাবে অমুসলিম ঘোষণার দাবির ইসলামী সম্মেলনে এ কথা বলেন শ্রমিক নেতা কাউসার আহমেদ পলাশ।

সম্মেলনটির আয়োজন করেছেন কওমী মাদ্রাসার শিক্ষক-ছাত্রদের সংগঠন আন্তর্জাতিক মজলিসে তাহাফফুজে খতমে নবুওয়াত বাংলাদেশের নারায়ণগঞ্জ শাখা। সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেব উপস্থিত থেকে দিক-নির্দেশনামূলক বক্তব্য দেন হেফাজতে ইসলামের আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফি।

এছাড়াও আরও বক্তব্য রাখেন হেফাজতে ইসলামীর মহাসচিব জুনায়েদ বাবুনগরী, হেফাজতে ইসলামীর ঢাকা মহানগরের সভাপতি নূর হোসাইন কাশেমী, সাইদুর রহমান, আব্দুল হামিদ, আতাউল্লাহ ইবনে হাফেজ্জী, মিজানুর রহমান চৌধুরী, নূরুল ইসলাম জিহাদী, আবদুল্লাহ মুহাম্মদ হাসান, জুনায়েদ আল হাবীব, ইমাদুদ্দীন, আবদুল বারী, আশরাফ আলী, আবদুল কুদ্দুস, তাফাজ্জুল হক, নূরুল ইসলাম ওলিপুরী, মুহাম্মদ ওয়াক্কাস, আশেকে এলাহী, আব্দুল হাই মেশকাত, মুহাম্মদ ইসহাক, মামুনুল হক, নজরুল ইসলাম কাশেমী, ওবায়দুর রহমান খাঁন নদভী, মাহবুবুল হক কাশেমী, শফিকুল ইসলাম, আবদুল আউয়াল, আবদুল কাদির, আবু তাহের জিহাদী প্রমুখ।

সম্মেলনকে কেন্দ্র করে কেন্দ্রীয় ঈদগাহের আশপাশে বাড়তি নিরাপত্তা নেওয়া হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য সড়কের পাশে অবস্থান গ্রহণ করেন।