বন্দরে বাল্য বিবাহ পন্ড করে দিল ভ্রাম্যমান আদালত

 

বন্দর(আজকের নারায়নগঞ্জ):  বন্দরে বাল্য বিবাহ অনুষ্ঠান পন্ড করে দিল ভ্রাম্যমান আদালত । বিবাহ বন্ধে কনের বাড়িতে হাজির হল বন্দর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পিন্টু বেপারী। গত বুধবার রাতে স্থানীয়দের সংবাদের ভিত্তিতে ২৩নং ওয়ার্ডের একরামপুরস্থ ইস্পাহানী এলাকার কানা গফুর মিয়ার ভাড়াটিয়া বাড়ীতে ভ্রাম্যমান আদালত এ অভিযান পরিচালনা করে।
জানা গেছে,বন্দর থানা ২৩নং ওয়ার্ডের একরামপুরস্থ ইস্পাহানী এলাকার কানা গফুর মিয়া বাড়ী ভাড়াটিয়া স্বপন হাওলাদারের বড় জামাতা কামাল মিয়ার শ্যালিকা ১৩ বছরের কিশোর মেয়ে সাথী আক্তারের সাথে পটুয়াখালী জেলার রাঙ্গাবালী থানার নেতা বাজার এলাকার মৃত জাকির হোসেনের ছেলে আহসান (২৫) এর সাথে বিবাহের মনস্থির করে।
মেয়ের বয়স কম হওয়ায় চতুর ভগ্নিপতি কামাল মিয়া এলাকাবাসীর চোখে ধূলা দিয়ে বুধবার গভীর রাতে ইস্পাহানী এলাকার কানা গফুর মিয়ার ভাড়াটিয়া বাড়ীতে গোপনে বিয়ের আয়োজন করে। বিষয়টি ইস্পাহানী এলাকার সচেতন মহলের নজরে পড়লে তারা দ্রুত বন্দর উপজেলা নির্বাহী অফিসার পিন্টু বেপারীকে মোবাইল ফোনে অবহিত করে।
বন্দর উপজেলা নির্বাহী অফিসার পিন্টু বেপারী দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে বাল্য বিবাহ পন্ড করে। ভ্রাম্যমান আদালতের উপস্থিতি টের পেয়ে ভগ্নিপতি কামাল কৌশলে পালিয়ে যায়।