জীবন চক্র

–আবু নাসির

অসীম থেকে একদিন চলে এলাম সসীমে
বাঁধলাম মায়ার বাঁধনে বাঁধা ঘর।
ভুলে গেলাম আজীবনের তরে
অসীম জগতের সব কিছু, হলাম স্মৃতি হারা।
কেমন ছিলাম সেথায় মন আবার জানতে চায়
আমি মনের কাছে একজন স্মৃতি হারা পাগল।
সসীমের জঞ্জালে, মায়া মমতায় জড়িয়ে
হলাম মানুষ থেকে অমানুষ, ধর্ষক,লোভের চাকর।
ক্ষমতা পেয়ে হলাম বিবেক হারা
বিচারক হয়ে লোভের মনে নিলাম ঠাঁই
অবিচারের পরাকাষ্ঠে নির্দোষকে ফাঁসিতে ঝুলাই।
একটা সুন্দর জগতকে পিছে ঠেলে
হলাম ফেরাউন, নমরূদ আর ইয়াজিদের দাস।
সৌম্য সুন্দর সসীম ধরাকে আস্তাবল বানিয়ে
হেথা চিরস্থায়ী বাসিন্দা বনে ভুলে গেলাম মৃত্যুকে।
সব ভালো কাজ গুলিকে লাথি মেরে
অর্থ লোভ লালসার দাস হয়ে ধর্ষক হয়ে
নিজের সকল সুখ এ সব অপকর্মের মাঝে
নিজেই নিজের দাস হয়ে সব ভুলে গেলাম
সম্বিত ফিরলো যখন দেখলাম জীবন তরীটা
মাঝ সাগরে ঘুর পাঁক খেয়ে ডুবে যাচ্ছে
চারি দিক অন্ধকারাচ্ছন্ন হলো রবি ডুবে যাওয়ায়
আবার আমাকে প্রবেশ করতে হবে নতুন জগতে
যার প্রজা শুধু আমিই একা, বাকি সবাই রাজা
তখন তাদের হাজার অত্যাচার আমায় সইতে হবে
মেনে নিতে হবে তাদের সকল নিয়ম নীতি
সুখ থেকে সুখ শেষে জীবন চক্র
আমার এনে পৌঁছে দিবে এই কারাগারে
কোটি কোটি আলোক বর্ষ থাকবো অপেক্ষায়
আবার অসীম জগত পাওয়ার আশায়।।