কয়লা চুরির মামলায় আসামি ১৯

 

সারাবাংলা(আজকের নারায়নগঞ্জ):  দিনাজপুরে বড় পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানির কয়লা দুর্নীতির ঘটনায় পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে একটি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এদিকে, দুর্নীতির ঘটনায় বুধবার (২৫ জুলাই) সকালে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির ব্যাবস্থাপক আনিসুর রহমান বাদী হয়ে ১৯ জনের বিরুদ্ধে পার্বতীপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

দিনাজপুরে বড় পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানির কয়লা দুর্নীতির ঘটনায় পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান আবুল মনসুর মোহাম্মদ ফয়জুল্লাহর নেতৃত্বে একটি দল কয়লা খনি ও তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্র পরিদর্শন করেন। এ সময় পেট্রোবাংলার অন্যান্য কর্মকর্তারাও তার সঙ্গে ছিলেন। পরিদর্শন শেষে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তারা ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন। তবে এ সময় গণমাধ্যমের সঙ্গে কোন কথা বলেননি তারা।

কয়লা দুর্নীতির ঘটনায় কোল মাইনিং কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ ১৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে খনি কর্তৃপক্ষ। বুধবার সকালে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির ব্যপস্থাপক আনিসুর রহমান বাদী হয়ে পার্বতীপুর থানায় মামলাটি করেন।

পার্বতীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফখরুল ইসলাম বলেন, ‘১ লাখ ৬৪৪ হাজার মেট্রিকটন, যার আনুমানিক মূল্য ২৩০ কোটি টাকা, চুরির অভিযোগে ১৯ জনকে আসামি করে থানায় এজহার দায়ের করলে থানায় আমরা নিয়মিত মামলার রুজু করি। মামলাটি দুদকের তফসিলভুক্ত হওয়ায় তদন্তের জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয় দিনাজপুর বরাবর প্রেরণ করা হয়েছে।’

এদিকে, দুর্নীতির বিরুদ্ধে সঠিক তদন্তের দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ করেছেন কয়লা খনির কর্মহীন শ্রমিকরা।

বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি ইয়ার্ডে ১ লাখ ৮০ হাজার মেট্রিক টন কয়লা মজুদ থাকার কথা। কিন্তু এখন রয়েছে মাত্র ৫ হাজার মেট্রিক টন। কয়লার অভাবে রোববার রাতে বন্ধ করে দেয়া হয় দেশের একমাত্র তাপ বিদ্যুতকেন্দ্র।