সোনারগাঁয়ে ইউএনও‘র হস্তক্ষেপে বন্ধ হলো বাল্যবিয়ে

সোনারগাঁ প্রতিনিধি : সোনারগাঁয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) হস্তক্ষেপে অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী মিতু আক্তারের (১৩) বাল্যবিবাহ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি কনের পিতাকে এক হাজার অর্থদন্ড করা হয়েছে।

শুক্রবার (১৩ ডিসেম্বর) দুপুরে উপজেলার সনমান্দি দৌলরদী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

কিশোরী মিতু আক্তার সনমান্দি ইউনিয়নের দৌলরদী গ্রামের মো. শাহজাহানের মেয়ে। সে সোনারগাঁ উপজেলার পঞ্চমীঘাট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে চলতি বছর জেএসসি পরীক্ষা দিয়েছে।

শুক্রবার দুপুরে বাড়িতে অপ্রাপ্তবয়স্ক কিশোরী কন্যার বিয়ের আয়োজন করেন শাহজাহান। স্থানীয় সূত্রে এমন খবর পেয়ে বিয়ে বাড়িতে উপস্থিত হন সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রকিবুর রহমান খান। ঘটনার সত্যতা পেয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ করাসহ কনের পিতাকে এক হাজার টাকা অর্থদন্ড করেন। এছাড়া প্রাপ্তবয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত কন্যাকে বিয়ে দিবেন না বলে মুচলেকা নেন। এদিকে এমন খবর পেয়ে বরপক্ষের কেউ আর বিয়ে বাড়িতে আসেননি।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রকিবুর রহমান খান বলেন, স্থানীয় একটি সূত্রের মাধ্যমে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ করে দেই। কনের পিতাকে অর্থদন্ডসহ মুচলেকা নেওয়া হয়েছে।