শিশু গৃহকর্মী নির্যাতনঃগৃহকত্রী অন্তঃস্ত্বা,রিমান্ডে গৃহকর্তা

ফতুল্লা(আজকের নারায়নগঞ্জ):    নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় শিশু গৃহপরিচারিকা পিতৃ-মাতৃহীন অনাথ মাহিকে (৮) নির্যাতনকারী পাষন্ড দম্পতির মধ্যে আতাউল্লাহ খোকনের বিরুদ্ধে ২দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত। একই সময় খোকনের স্ত্রী উর্মি আক্তার নিজেকে সাত মাসের অন্তঃসত্বা দাবী করায় আদালত তার বিরুদ্ধে পুলিশের রিমান্ড আবেদন না মঞ্জুর করেছেন।

সোমবার (২৩ জুলাই) সকালে নারায়ণগঞ্জ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মেহেদী হাসানের আদালতে রিমান্ড শুনানী অনুষ্ঠিত হয়।

কোর্ট পুলিশের এসআই হানিফ এর সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, রোববার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আবতাবুজ্জামানের আদালত মাহির জবানবন্দি গ্রহন করে অভিভাবক না পাওয়ায় তাকে শিশু কিশোর উন্নয়ন সংশোধনাগার গাজিপুরে নিরাপদ হেফাজতে পাঠানো হয়েছে।

ফতুল্লা থানা পুলিশের একটি টিম আজ দুপুরে গাজীপুরে নিরাপদ আশ্রয়কেন্দ্রে মাহীকে নিয়ে যায়। পরে ফতুল্লা মডেল থানার এসআই ইলিয়াস মাহীকে আশ্রয়কেন্দ্রের সহকারী হোস্টেল সুপার পারভীন আক্তারের হাতে তাকে তুলে দেয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ফতুল্লা মডেল থানার এসআই ইলিয়াছ জানান, ফতুল্লার পূর্ব ইসদাইর আনন্দনগর এলাকার শহীদুল্লাহর বাড়ির ভাড়াটিয়া আতাউল্লাহ খোকন ও উর্মি আক্তারের বাসায় ৩ মাস ধরে পিতৃ-মাতৃহীন শিশু মাহিকে গৃহপরিচারিকা হিসেবে কাজে নেয়। এরপর থেকে শিশুটিকে প্রায় কারনে অকারনে মারধর করত। গত শুক্রবার ১৯ জুলাই রাতে বাঁচাও বাঁচাও চিৎকার শুনে স্থানীয় লোকজনকে নিয়ে ওই দম্পতির বাসায় গিয়ে শিশুটিকে উদ্ধার করে থানায় খবর দেয়। পরে পুলিশ এসে শিশুটিকে মুমর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় জাকির হোসেন নামে স্থানীয় এক ব্যক্তি ওই দম্পতির বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।