ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন মামলায় দুই দিনের রিমান্ডে আমির হোসেন

 

স্টাফ রিপোর্টার (আজকের নারায়নগঞ্জ): সিদ্ধিরগঞ্জ থানার একটি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন মামলায় মো. আমির হোসেন পাটোয়ারীকে দুই দিনের রিমান্ড দিয়েছে আদালত। এর আগে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করে আসামীকে আদালতে হাজির করে। পরে রিমান্ড শুনানি শেষে আদালত দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

বুধবার (৩০ অক্টোবর) সকালে চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্টে আহাম্মদ হুমায়ূন কবির এর আদালত এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রিমান্ডপ্রাপ্ত আসামি হলো- লক্ষীপুর জেলার যাদিয়া (টুকা মিয়া পাটোয়ারী বাড়ী) এলাকার মৃত. মোহাম্মদুল্লাহ পাটোয়ারীর ছেলে মো. আমির হোসেন পাটোয়ারী (৫৭)।তিনি ঢাকার মুগদা থানার উত্তর মুগদাপাড়া এলাকার সামাদ টাওয়ারের বাসিন্দা।

পুলিশ ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি পাইনাদী দশতলা ভবন সংলগ্ন এলাকায় তার এএইচ কার্গো সার্ভিস নামক একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের অফিসে বসেই আমির হোসাইন নামক ফেইসবুক আইডি থেকে আমির হোসেন পাটোয়ারী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, তাঁর ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়, পুলিশ প্রশাসন, বিভিন্ন মন্ত্রীকে নিয়ে এবং সরকার বিরোধী বিভিন্ন মন্তব্য ও ছবি পোস্ট করতেন। এসব খারাপ ও অপত্তিকর মন্তব্য করার প্রতিবাদ করলে আমির হোসেন পাটোয়ারী বাদী নোমান হোসেনকে বিভিন্ন হুমকি প্রদান করেন বলে মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ফারুক জানান, আমির হোসেন পাটোয়ারী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, তাঁর ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়সহ বিভিন্ন মন্ত্রী ও পুলিশ প্রশাসনকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য ও ব্যঙ্গচিত্র তৈরি করে ফেসবুকে পোস্ট করতেন। পরে নোমান হোসেন নামক এক ব্যক্তির অভিযোগের প্রেক্ষিতে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের শেষে বৃহস্পতিবার দুপুরে রিমান্ডের আবেদন করে তাকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

প্রাথমিক তদন্তে জানা যায় যে, আসামি তাহার ফেইসবুক আইডি দিয়ে প্রধানমন্ত্রীসহ বিভিন্ন গন্যমান্য ব্যক্তি ও পুলিশের বিভিন্ন ছবি ইডিট করে আজেবাজে ছবি পোষ্ট করে থাকে। তাকে এই সকল আজেবাজে পোষ্ট করতে না করায় সে ক্ষিপ্ত হয়ে বিভিন্ন ধরণের ভয়-ভীতি প্রদর্শন করে বাদী নোমান হোসেনকে। আসামির বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের সত্যতার প্রমাণ পাওয়া গেছে। তাই মামলার সুষ্ঠু তদন্ত ও মূল রহস্য উৎঘাটনের লক্ষে আসামীকে ২ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হচ্ছে।

এবিষয়ে কোর্ট পরিদর্শক মো. আব্দুল হাই বলেন, আসামি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলার সাথে জড়িত। তাই মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশে আসামিকে ২ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।