প্রভাবশালীর কাগজবিহীন বাস,লেগুনা বৈধ !গরীবের অটোরিক্সা অবৈধ ? প্রশ্ন পলাশের

 

প্রেসবিজ্ঞপ্তিঃ  জাতীয় শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির শ্রমিক উন্নয়ন ও কল্যান বিষয়ক সম্পাদক আলহাজ্ব কাউসার আহম্মেদ পলাশ বলেছেন, জেলার সিটি কর্পোরেশন, পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদে বৈধ ঘোষনা করে এই সকল রিক্সার লাইসেন্স আদায় করাই আমাদের মূল উদ্দেশ্য।ব্যাটারী চালিত রিক্সা ও অটো রিক্সার বৈধতার দাবিতেই নারায়ণগঞ্জ জেলা ব্যাটারী চালিত রিক্সা ও অটো রিক্সা মালিক শ্রমিক সংগ্রাম পরিষদ গঠন করা হয়েছে।

তিনি দাবী করে বলেন,এই সংগঠনের মাধ্যমে ব্যাটারী চালিত রিক্সা ও অটো রিক্সা থেকে কোন অবৈধ চাঁদা আদায় হয় না। মালিক ও শ্রমিকদের কল্যান তহবিল ও সড়কের ভলান্টিয়ারের ব্যায়ভার জন্য স্বেচ্ছায় তারা মালিক ও শ্রমিক সংগ্রাম পরিষদের মাধ্যমে চাঁদা প্রদান করে থাকে। প্রশাসনের হয়রানি বন্ধ ও অবৈধ চাঁদাবাজীর অপপ্রচার থেকে বিরত থাকেন, তা নাহলে এর মালিক শ্রমিকরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে কঠোর আন্দোলনে নামতে বাধ্য হবে আর এর দায়দায়িত্ব প্রশাসন ও অপপ্রচার কারীদেরকে নিতে হবে।

ঢাকায় প্রধানমন্ত্রীর গনসংবর্ধনা অনুষ্ঠানের অংশগ্রহনের জন্য গতকাল সদর উপজেলার ফতুল্লার আলীগঞ্জ শ্রমিক হলে ব্যাটারী চালিত রিক্সা ও অটো রিক্সা মালিক শ্রমিক সংগ্রাম পরিষদের প্রস্তুতিমুলক সভায় সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, ব্যাটারী চালিত রিক্সা ও অটো রিক্সা যখনই সিটি কর্পোরেশন, পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদের জনপ্রতিনিধিরা বৈধ ঘোষনা করবে তখনই এসব রিক্সার রেজিষ্ট্রেশন করানো হবে। প্রয়োজনে আমাদের সংগঠনের মাধ্যমেও কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মালিক শ্রমিক সংগ্রাম পরিষদ কোন অবৈধ বা জোরপূর্বক চাঁদা উত্তোলন করে না। সাংগঠনিক নিয়মানুযায়ি কল্যান ফান্ডের জন্য চাঁদা উত্তোলন করে। দূর্ঘটনায় নিহত, আহত ও মৃত চালক ও মালিকের পরিবারকে যেন ভিক্ষার থাল হাতে নিতে না হয়। এজন্য তাদের এই তহবিল থেকে অনুদান দেয়া হয়। উদ্বৃত্ত টাকা আল আরাফা ব্যাংকে জমা হয়। মালিক ও শ্রমিরকের কল্যানে করা এই সিস্টেম ,মালিক শ্রমিক সংগ্রাম পরিষদের থাকায় এই সংগঠনটি ব্যাটারী চালিত রিক্সা ও অটো রিক্সার জন্য একটি মডেল সংগঠন।

তিনি অাক্ষেপ করে বলেন,   জেলার প্রধান সড়কে যাত্রীবাহী বহু অবৈধ বাস, মিনিবাস ও লেগুনা চলছে অথচ এসবের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেই আর গরীবের সম্পদ ব্যাটারী চালিত রিক্সা ও অটো রিক্সা চললেই অবৈধ। অথচ এসকল ব্যাটারী চালিত রিক্সা ও অটো রিক্সা এবং পার্সগুলো যখন বৈধ ভাবে আমদানি হচ্ছে তখন কোন বাধা নেই, যখনই একজন নিম্ন মধ্যবিত্ত রিক্সাটি কিনে রাস্তায় চালায় তখনই এক শ্রেনির প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের কাছে হয়ে যায় অবৈধ। আমাদের বৈধতার সংগ্রাম চলছে বৈধতা না পাওয়ার পূর্বমূহুর্ত পর্যন্ত চলবে।

তিনি আগামী ২১ জুলাই ঢাকায় প্রধানমন্ত্রীর গনসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে দলবলে অংশগ্রহনের অনুরোধ করেন।
সংগ্রাম পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক আজিজুল হকের সভাপতিত্বে সংগঠনের নেতাকর্মীরাসহ মালিক ও চালকরা উপস্থিত ছিলেন।