প্রথমে অনুদান পরে চাঁদাবাজির চেষ্টা,অতপরঃ

আজকের নারায়নগঞ্জ ডেস্ক: প্রথমে মেয়ের চিকিৎসার অজুহাতে অনুদান নিয়ে পরবর্তীতে এসে চাঁদাবাজি করার অভিযোগে এক নারী প্রতারককে আটক করেছে এক নির্বাহি ম্যাজিস্ট্রেট। পরে ওই নারীকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।

আটককৃত ওই নারী প্রতারকের নাম জাকিয়া সুলতানা কেয়া। সে নিজেকে রক্ষা করতে এক পর্যায়ে ‘সাংবাদিক’ হিসেবেও পরিচয় দিচ্ছেন।

মঙ্গলবার (১ অক্টোবর) বিকাল সাড়ে ৪টায় খানপুর ভূমি অফিসে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই প্রতারক নারীর বিরুদ্ধে চাঁদাবাজীর অভিযোগ দায়ের করেছে সিদ্ধিরগঞ্জ রাজস্ব সার্কেলের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট রুমানা আক্তার। আটককৃত ওই নারী প্রতারকের নাম জাকিয়া সুলতানা কেয়া। সে নিজেকে রক্ষা করতে এক পর্যায়ে ‘সাংবাদিক’ হিসেবেও পরিচয় দিচ্ছেন।

এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট রুমানা আক্তার জানান, ২৯ সেপ্টেম্বর দুপুর ১২টার দিকে মেয়ে ক্যান্সারে আক্রান্ত দাবি করে সাহায্য কামনা করেন ওই নারী। পরে মানবিক দিক বিবেচনা করে ২ হাজার টাকা সাহায্যও করা হয়।

এ ঘটনার পর ১ অক্টোবর সেই নারী অফিসে প্রবেশ করে মোবাইল ফোন ধরিয়ে দিয়ে বলে, কথা বলতে। এ সময় অপর প্রান্ত থেকে ভোরের পাতার সম্পাদক পরিচয়ে এক ব্যক্তি বলেন, আমার ভাল চান। আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ এসেছে। পত্রিকার ছাপাবে কি না ইত্যাদি ইত্যাদি। তার কথাবার্তায় সন্দেহ হওয়ায় তাকে আটকে থানা পুলিশকে খবর দেই।

এদিকে, ওই নারী জানান, তার মেয়ে অসুস্থ। পরে কয়েক দিন আগে এক ব্যক্তির সাথে কথা হয় তার। সেই ব্যক্তিরই পরামর্শে এখানে এসে ফোন ধরিয়ে দেন।

পরে পুলিশের হাতে হস্তান্তরের খবর পেলেও সম্পাদক পরিচয় প্রদানকারী প্রতারকচক্রের সকলেই মুঠোফোন বন্ধ করে দেয়।

ঘটনা সম্পর্কে নারায়ণগঞ্জ সদর থানার এএসআই এনায়েত করিম জানান, আটককৃত নারী অসুস্থ হওয়ায় তাকে চিকিৎসা দিয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে একটু বিলম্ব হচ্ছে । সকালে পুলিশ সুপারের নির্দেশনায় ব্যবস্থা নেয়া হবে।