জঙ্গী আস্তানায় অপারেশনঃ ছুটিতে থেকেও তৎপর এসপি হারুন

আজকের নারায়নগঞ্জ ডেস্ক: নারায়নগঞ্জ জেলায় তৎপর পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিট। চলছে ফতুল্লার সেহাচর তক্কারমাঠে জঙ্গী আস্তানা গুড়িয়ে দেয়ার শ্বাসরুদ্ধকর অপারেশন। এ সময় ঘটনাস্থলে নেই বাংলার সিংহাম এ মুহুর্তে সবচেয়ে আলোচিত পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ। তা কি করে হয়। জানা গেল তিনি ছুটিতে দেশের বাইরে অবস্থান করছেন। তাতে কি ?

ঘটনার সংবাদে উদ্বেলিত পুলিশ সুপার হারুন দেশের বাইরে বসেও জেলা পুলিশকে দিকনির্দেশনা দিয়েছেন কাউন্টার টেররিজম ইউনিটকে সহযোগিতা করার। বিদেশে থেকেও মোবাইলে কথা বলেছেন কাউন্টার টেরিরজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলামের সাথে এবং সে মোতাবেক জেলা পুলিশকে সহযোগিতা করার নির্দেশনা দেন। এসময় কে কোথায় কিভাবে কাজ করবে এর যথাযথ দিক নির্দেশনা দিয়েছেন। এর ফলে অপারেশনটি সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে। 

এ ব্যাপারে জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার ডিআইও-টু ইন্সপেক্টর সাজ্জাদ রোমন এক বার্তায় জানান,২৩/০৯/১৯ খ্রিস্টাব্দ ভোর ০৪.০০ ঘটিকা থেকে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের একটি চৌকস দল নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের সহযোগিতায় ফতুল্লা থানাধীন তক্কার মাঠ এলাকায় জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে জনৈক জয়নাল আবেদীনের দুটি বাড়ি ঘেরাও করে।

অতঃপর কাউন্টার টেররিজম ইউনিট কর্তৃক গ্রেপ্তারকৃত মিজান এর দেওয়া তথ্য মোতাবেক ফতুল্লায় কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট এসে জনৈক জয়নাল আবেদীন (সাবেক বাংলাদেশ ব্যাংক কর্মকর্তা) এর বাড়িতে তাহার এক ছেলে ফরিদউদ্দিন রুমি (২৮) যে কিনা (আহসানউল্লাহ প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের লেকচারার) ও তাহার স্ত্রী জান্নাতুল ফোয়ারা অনু (২৬)( অগ্রণী ব্যাংকের কর্মকর্তা) তারা উক্ত বাড়িতে অবস্থান করিয়া দেশকে অস্থিতিশীল করার জন্য এবং পুলিশের মনোবল ভাঙার জন্য ও নিরস্ত্র পুলিশ বাহিনীর ওপর আক্রমণ করার উদ্দেশ্যে উক্ত বাড়িতে বিস্ফোরক দ্রব্য মজুদ রেখেছে বলে নিশ্চিত হন।

পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট এর বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দল উক্ত বোমাগুলো কে নিষ্ক্রিয় করে ফেলে। উক্ত সময়ে পুলিশকে সহায়তা করতে ফায়ার সার্ভিস এবং উক্ত এলাকার লোকজন উপস্থিত ছিলেন।

নারায়ণগঞ্জ জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার মহোদয় ছুটিতে থাকার পরেও তিনি মোবাইল ফোনে কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের প্রধান এবং সংশ্লিষ্টদের সাথে উক্ত বিষয়ে কথা বলেন ও নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশকে কাউন্টার টেররিজম ইউনিট কে সহায়তা করার জন্য গুরুত্বপূর্ণ দিকনির্দেশনা প্রদান করেন।