জ্বালাও-পোড়াও বিএনপি নিয়ে সাংসদ উন্নয়ন দেখাচ্ছেন- আরজু ভূঁইয়া

আজকের নারায়নগঞ্জঃ  জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আরজু রহমান ভূইয়া বলেছেন, লাঙ্গলের কারণে বন্দর থানা আওয়ামীলীগ সভাপতি উপজেলা চেয়ারম্যান হতে পারে নাই। তাকে জেলা পরিষদের সদস্য না করে সদস্য করা হয়েছে জাতীয় পার্টির জেলা সভাপতিকে।

তিনি আরো উদাহরন দিয়ে বলেন, সিটি নির্বাচনে প্রচারণার সময় কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ এ আসনে লাঙ্গল মার্কা আওয়ামীলীগ দেখেছেন। তারপরেও সকল ষড়যন্ত্র ছিন্ন করে নৌকার প্রার্থী জনপ্রিয় নেত্রী আইভীকে জয়ী করেছে।

আওয়ামীলীগের সকল লোককে মাইনাস করে জ্বালাও পোড়াও করা বিএনপির কাউন্সিলরদের নিয়ে বর্তমান সাংসদ আপামর জনসাধারণের উন্নয়ন দেখাচ্ছেন।

রোববার (১৫ জুলাই) বিকেল ৪টায় বন্দরে ধামগড় ইউনিয়ন পরিষদ মাঠ প্রাঙ্গণে থানা আওয়ামীলীগ এর উদ্যেগে সংদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কর্মসূচী উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

আরজু ভুইয়া বলেন, আমি চাই এলাকার মানুষ নৌকায় ভোট দেক। উন্নয়নের প্রচারণা চালাতে ঘরে ঘরে ৩০ হাজার লিফলেট বিতরণ করে মানুষদের জানাচ্ছি কেন তারা নৌকায় ভোট দিবেন। একবার এক আমলাকে আমরা এমপি বানিয়ে দিয়েছি। আসুন এবার আওয়ামীলীগের যোগ্য প্রার্থীকে সাংসদ বানাই।

বন্দর থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি এমএ রশিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ এর সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিষ্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। এছাড়া জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাই, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবু হাসনাত মো.শহীদ বাদল, সিনিয়র সহ-সভাপতি নাসিক মেয়র ডা.সেলিনা হায়াৎ আইভী, সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান আসাদ, আরজু রহমান ভুইয়া, আব্দুল কাদির, আদীনাথ বসু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম আবু সুফিয়ান,দপ্তর সম্পাদক এম এ রাসেল, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শেখ সাইফুল ইসলাম, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক রানু খন্দকার, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মরিয়ম কল্পনা, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক নূর হোসেন, সদস্য অ্যাডভোকেট আবু ইসহাক, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ জাতীয় পরিষদের সদস্য অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান দিপু,বন্দর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আবেদ হোসেনসহ আওয়ামীলীগের অন্যান্য অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।