ফতুল্লায় পুলিশের রাইফেল চুরির ঘটনায় মামলা

ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের রাইফেল চুরির ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছে। এএসআই সুমন কুমার পাল বাদী হয়ে সোর্স পারভেজ (২৮), টিপু (২৪), রিফাত (২২) ও নূর ইসলামকে আসামী করে মামলাটি দায়ের করেন। তবে রাইফেল চুরির ঘটনার সাথে জড়িত এখনো কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

গত রোববার রাতে দাপা ইদ্রাকপুরে ডিউটিরত অবস্থায় পুলিশ কনস্টেবল সোহেল রানার কাছ থেকে একটি চাইনিজ রাইফেল চুরি হয়ে যায়। কথা কাটাকাটির জের ধরে পুলিশ সোর্স পারভেজর কনস্টেবল সোহেলের কাছে থাকা রাইফেলটি চুরি করে নিয়ে যায় বলে জানা গেছে। সোমবার বেলা ১১টার দিকে দাপা বালুর মাঠ এলাকা সংলগ্ন একটি পরিত্যাক্ত ডোবা থেকে রাইফেলটি উদ্ধার করে পুলিশ।

রাইফেল খোয়া যাওয়ার ঘটনায় পুলিশের এএসআই সুমন কুমার পাল, কনস্টেবল সোহেল রানা, কনস্টেবল নাইম, কনস্টেবল মাসুদকে পুলিশ লাইনে ক্লোজ করে অতিরিক্তি ডিআইজি আসাদুজ্জামান। সোমবার দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেন পুলিশের এই কর্মকর্তা।

সোমবার রাতে এএসআই সুমন কুমাল পাল বাদী হয়ে রাইফেল চুরির ঘটনায় একটি মামলা দায়ের করেছে। মামলায় সুমন কুমার উল্লেখ করেন,ঘটনার দিন রাতে দাপা ইদ্রাকপুর এলাকায় ওয়ারেন্টট তামিল ও মাদক উদ্ধারের জন্য যায়। এসময় দাপা বালুর মাঠে পুলিশ কিছুক্ষণ অবস্থান করে।

এর মধ্যে গাড়ির মধ্যে সোহেল কিছুটা তন্দ্রাচ্ছন্ন হয়ে পড়ে। এসময় মাদক বিক্রেতা ও ছিনতাইকারী পারভেজসহ বেশ কয়েকজন মাঠে অবস্থান করছিল। ছিনতাই ও মাদক বিক্রিতে সমস্যা হওয়ার কারণে পারভেজ,টিপু,রিফাত,নূর ইসলাম ও তার সহযোগীরা তন্দ্রাচ্ছন কনস্টেবল সোহেল রানার কাছ থেকে রাইফেলটি চুরি করে একটি পরিত্যাক্ত ডোবায় রাইফেলটি ফেলে রেখ যায়।

এব্যাপারে ফতুল্লা মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) মজিবুর রহমান বলেন,আসামীদের গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে।