৬ বছরের কারাদণ্ড ঝিকরগাছা উপজেলা চেয়ারম্যান সাবিরা সুলতানার

আজকের  নারায়নগঞ্জঃ মিথ্যা তথ্য ও জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার বর্তমান চেয়ারম্যান সাবিরা সুলতানাকে ৬ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার ঢাকার সাত নম্বর বিশেষ জজ মো. শহিদুল ইসলাম আসামির অনুপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন।

রায়ে ৬ বছর দণ্ডের মধ্যে দুর্নীতি দমন আইন ২০০৪ সালের ২৬ (২) ধারায় তিন বছর ও ২৭ (১) ধারায় তিন বছরের ওই কারাদণ্ড দেন আদালত।

এছাড়া রায়ে দণ্ডের পাশাপাশি তাকে ৫ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। জরিমানা অনাদায়ে তাকে আরো তিন মাস করে কারাভোগ করতে হবে। তবে উভয় সাজা একত্রে চলবে বলে রায়ে উল্লেখ করা হয়েছে।

আর জ্ঞাত আয় বহিভূতভাবে অর্জিত ১ কোটি ৭৮ হাজার ১৩৫ টাকা ৮৪ পয়সা সরকারের অনুকূলে বাজেয়াপ্তের নির্দেশও দিয়েছেন বলে জানান দুদকের পাবলিক প্রসিকিউটর মীর আহম্মেদ।

আসামি পলাতক থাকায় তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।

২০১০ সালের ২০ জুলাই দুদকের সহকারী পরিচালক সৈয়দ আহমদের দায়ের করা মামলার এজাহারে আসামির বিরুদ্ধে ৫৫ লাখ ৭৮ হাজার ১৩৫ টাকা ৮৪ পয়সা সম্পদের বিষয়ে ভিত্তিহীন হিসাব প্রদান এবং ৪৫ লাখ টাকার সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগ করেন।

মামলাটিতে ওই বছরের ২৫ জুলাই চার্জশিট দাখিল করে দুদক। এরপর ২০১১ সালের ৯ জানুয়ারি আসামির বিরুদ্ধে চার্জগঠন করে বিচার শুরু করেন আদালত। মামলাটির বিচারকাজ চলাকালে ৯ জন সাক্ষীর মধ্যে ৮ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন আদালত।