থাইল্যান্ডের ‘থাম লুয়াং গুহা’ জাদুঘরে পরিণত হচ্ছে !

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ  থাইল্যান্ডের উত্তরাঞ্চলের যে গুহায় ১২ কিশোর ও তাদের ফুটবল কোচ দুই সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে আটকা পড়েছিল তা জাদুঘরে পরিণত করার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

উদ্ধারকারী কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, উদ্ধার অভিযান কীভাবে চালানো হয়েছে তা ওই গুহা জাদুঘরে প্রদর্শন করা হতে পারে এবং এটি থাইল্যান্ডের পর্যটনের একটি ‘বড় ধরনের আকর্ষণে’ পরিণত হতে পারে।

অন্ততপক্ষে দুটি কোম্পানি উদ্ধার অভিযানের গল্প নিয়ে একটি চলচ্চিত্র নির্মাণেরও পরিকল্পনা করেছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

উদ্ধার পাওয়া ওই থাই কিশোর দল এখন হাসপাতালে আছে। তারা দ্রুত স্বাভাবিক শারীরিক অবস্থা ফিরে পাচ্ছে। পাহাড়ের নিচের ওই অন্ধকার গুহায় ১৭ দিন আটকা থেকে কোচসহ তারা গড়ে দুই কেজি করে ওজন হারিয়েছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

সর্বশেষ প্রকাশিত একটি ভিডিওতে হাসপতালের বেডে বসা ও শোয়া অবস্থায় তাদের দেখা গেছে। তাদের শারীরিক অবস্থা ভাল আছে এবং ভিডিওতে তাদের উৎফুল্লও দেখা গেছে। এরপরও বিচ্ছিন্ন অবস্থায় এক সপ্তাহ তাদের হাসপাতালেই থাকতে হবে।

উদ্ধার অভিযানের নাটকীয় ফুটেজ প্রকাশ করেছে থাই নেভি সিল। ফুটেজে বিশেষজ্ঞ ডুবুরিরা কীভাবে ওয়াইল্ড বোয়ার ফুটবল দলের ওই সদস্যদের গুহা থেকে বের করে এনেছেন তা দেখানো হয়েছে।

থাম লুয়াং গুহাটি থাইল্যান্ডের সবচেয়ে বড় গুহাগুলোর মধ্যে অন্যতম। গুহাটি মিয়ানমারের সীমান্তবর্তী থাইল্যান্ডের উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশ চিয়াং রাইয়ে অবস্থিত। এখানকার ছোট শহর মায়ে সাইকে ঘিরে থাকা পর্বতের নিচে গুহাটির অবস্থান।

পর্যটনের সীমিত সুযোগসুবিধা থাকা ওই এলাকাটি অনেকটাই অনুন্নত।

এক সংবাদ সম্মেলনে সাবেক গভর্নর ও উদ্ধার অভিযানের প্রধান নারংসাক অসোততানাকর্ন বলেছেন, “অভিযান কীভাবে করা হয়েছিল তা প্রদর্শন করতে এলাকাটিকে প্রাকৃতিক জাদুঘরে পরিণত করা হবে। এটি থাইল্যান্ডের আরেকটি বড় আকর্ষণ হয়ে উঠবে।”

পর্যটকদের সুরক্ষার জন্য গুহার ভিতরে ও বাইরে পূর্বসতর্কতামূলক বিভিন্ন ব্যবস্থাও গ্রহণ করতে হবে বলে জানিয়েছে থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুথ চান ওচা।

তবে জাদুঘরটি সারা বছরজড়ে চালু থাকবে কি না তা পরিষ্কার হয়নি। কারণ জুন থেকে অক্টোবর পর্যন্ত থাইল্যান্ডে বর্ষাকাল। এ সময় দেশটিতে প্রায়ই ব্যাপক বন্যা হয়ে থাকে।

এই বর্ষাকালের ভারি বৃষ্টিপাতেই ‍গুহাটির ভিতর ঘুরতে থাকা ওই কিশোরের দল ভিতরে প্রবেশ করা পানিতে রাস্তা বন্ধ হয়ে আটকা পড়েছিল।

২৩ জুন আটকা পড়ার নয় দিন পর দুই ব্রিটিশ ডুবুরি গুহার প্রায় ৪ কিলোমিটার ভিতরে ওই কিশোরদের সন্ধান পান। আটকা পড়ার ১৭ দিন পর গুহাটি থেকে ওই ১২ কিশোরকে তাদের কোচসহ বের করে নিয়ে আসা হয়।