ছেলে ধরা গুজব: সিদ্ধিরগঞ্জে গণপিটুনিতে যুবক নিহত, নারী আহত

সিদ্ধিরগঞ্জ(আজকের নারায়নগঞ্জ): সিদ্ধিরগঞ্জে দুই ঘণ্টার ব্যবধানে বিচ্ছিন্ন দুইস্থানে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে অজ্ঞাত এক যুবক নিহত হয়েছে। অন্যদিকে শারমিন (২০) নামে এক নারী আহত অবস্থায় নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় সিদ্ধিরগঞ্জে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

শনিবার(২০ জুলাই) সকাল পৌনে ৯ টায় ও পৌনে ১১ টায় বিচ্ছিন্ন এ দুই ঘটনা ঘটে সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি পূর্বপাড়া ও পাইনাদী শাপলা চত্বর এলাকায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়,শনিবার সকাল ৮টায় ৬-৭ বছরের এক মেয়ে শিশুর হাত ধরে নিয়ে যাচ্ছিল ওই যুবক। এ সময় শিশুটি কান্নাকাটি শুরু করলে দুই যুবকের সন্দেহ হয়। তারা ওই যুবককে জিজ্ঞাসাবাদ করলে শিশুটি নিজের বলে দাবি করে ওই যুবক। ইতোমধ্যে শিশুটির বাবা ঘটানস্থলে গেলে শিশুটি তার বাবার কাছে চলে যায়।

এ ঘটনায় উপস্থিত লোকজন ওই যুবককে গণপিটুনি দেয়। খবর পেয়ে আশঙ্কাজনক অবস্থায় পুলিশ উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জের খানপুর হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত যুবকের পরিচয় উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ।

এই ঘটনার দুই ঘন্টা পর সোয়া ১০টার দিকে মিজমিজির শাপলা চত্বর এলাকায় ফাইজুল ইসলাম লাবিব নামে চার বছরের শিশুকে অপহরণ করার সন্দেহে এক নারীকে গণপিটুনি দেয়া স্থানীয়রা। পরে আহতাবস্থায় তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে পুলিশ।

আহতকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় পুলিশকে বাধা দেয় স্থানীয়রা। এ সময় পুলিশের সাথে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশের গাড়িকে উদ্দেশ্য করে ইট-পাটকেল ছুড়ে মারতে থাকেন স্থানীয়রা। এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ছেলে ধরার বিষয়টি সম্পূর্ণটাই গুজব। সারাদেশে ছেলে ধরা গুজবের শিকার হয়েছেন ওই যুবক ও নারী।

 গণপিটুনির ঘটনাস্থল থেকে ফিরে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) শাখাওয়াত হোসেন জানান, স্থানীয়রা যে বাচ্চা মেয়েটিকে ধরেছে বলেছিল তার অভিভাবক জানায়, তার মেয়ে স্কুলে ক্লাস করছে। মেয়েটি স্থানীয় আইডিয়াল কিন্ডার গার্ডেনের ছাত্রী। প্রাথমিকভাবে ছেলে ধরার ব্যাপারে কোন সত্যতা মেলেনি। নিহত যুবক গুজবের শিকার বলে ধারণা হচ্ছে।

এদিকে শাপলা চত্বর এলাকায় ২২ থেকে ২৫ বছরের এক মহিলা খেলনা ও খাবার দিয়ে এক শিশুকে নিয়ে যাচ্ছিল। এসময় প্রত্যক্ষদর্শীদের সন্দেহ হলে তারা শিশুটি কার জিজ্ঞেস করলে সে কোন সদুত্তর দিতে পারনি। এসময় এলাকাবাসী জড়ো হয়ে তাকে গণপিটুনি দেয়া শুরু করে। খবর পেয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে জনতার রোষানল থেকে তাকে উদ্ধার করে তাকে নারায়ণগঞ্জ হাসপাতালে নিয়ে যায়। তার শারীরিক অবস্থা গুরুতর বলে জানিয়েছেন সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক শাহীদুল ইসলাম।