বন্দরে ছাত্রী ধর্ষনের ঘটনায় থানায় মামলা

 

সংবাদদাতা,বন্দরঃ  বন্দরে মিরকুন্ডী উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর ছাত্রী (১৫)কে অপহরনের পর ৩ দিন আটক রেখে জোর পূর্বক ধর্ষনের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। সোমবার দুপুরে ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে অপহরণকারী তথা লম্পট ধর্ষক উজ্জল ওরফে সাকিবকে আসামী করে বন্দর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। যার মামলা- ২৫(৭)১৮।

তথ্য সূত্রে জানা গেছে, বন্দর উপজেলার বালুচর এলাকার লিয়াকত আলী মিয়ার মেয়ে (১৫) মিরকুন্ডী উচ্চ বিদ্যালয়ে ১০ম শ্রেণীতে লেখাপড়া করে আসছে। স্কুল ছাত্রী স্কুলে যাতায়াতের পথে একই উপজেলার কলাগাছিয়া ইউনিয়নের জিওধরা এলাকার মোঃ আমিন মিয়ার ছেলে উজ্জল ওরফে সাকিব বিভিন্ন সময়ে তাকে পথ রোধ করে উত্যক্ত করে আসছে।

এর ধারাবাহিকতায় ,গত ৪ জুলাই দুপুরে স্কুল ছাত্রী বাড়ীর অদূরে জনৈক মনির হোসেনের মুদি দোকানের সামনে গেলে ওই সময় উৎপেতে থাকা অপহরণকারী লম্পট উজ্জলসহ অজ্ঞাত ২/৩ জন জোর পূর্বক সিএনজি যোগে অপহরণ করে পালিয়ে যায়।

পরে অপহরনকারী উজ্জলসহ তার সহযোগীরা স্কুল ছাত্রীকে শহরের নিতাইগঞ্জ এলাকায় কথিত ভাবির বাড়ীতে আটক রাখে। সেখানে স্কুল ছাত্রীকে ৩ দিন আটক রেখে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর পূর্বক ধর্ষন করে।

পরে ধর্ষিতা স্কুল ছাত্রী ৭ জুন সন্ধ্যা ৭টায় কৌশলে নিতাইগঞ্জ কথিত ভাবির বাড়ী থেকে পালিয়ে এসে বন্দর কুশিয়ারা গিয়াস উদ্দিনের বাড়ীতে এসে আশ্রয় নেয়। আশ্রয় দাতা গিয়াস উদ্দিন বিষয়টি স্কুল ছাত্রী পিতা মাতাকে অবহিত করে।

এ ঘটনায় ধর্ষিতা স্কুল ছাত্রীর মা সোমবার দুপুরে বাদী হয়ে বন্দর থানায় মামলা দায়ের করলে পুলিশ ধর্ষিতা স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধার করে ডাক্তারী পরিক্ষা নিরিক্ষার জন্য সোমবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করেছে।

অপহরনের পর ধর্ষনের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হলেও অপহরণকারী উজ্জলসহ তার সহযোগীদের গ্রেপ্তারের সংবাদ জানাতে পারেনি পুলিশ।