বক্তব্য দিয়েই অনশন শেষ করলেন না‘গঞ্জ বিএনপির নেতারা

আজকের নারায়নগঞ্জঃ  নারায়ণগঞ্জে বিএনপি প্রতিকী অনশন কর্মসূচী পালিত হয়েছে। নেতারা আসলেন, বক্তব্য দিলেন আর চলে গেলেন। কেন্দ্রীয় কর্মসূচী সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত অনশনের সময় নির্ধারন থাকলেও পালন করছেন না স্থানীয় বিএনপি নেতারা।

জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান মনির বলেছেন, স্বৈরাচারী সরকারই পারে দেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ৭৪ বছর বয়সী একজনকে কারাগারে আটকে রাখতে। তবে আন্দোলন সংগ্রামের মধ্য দিয়েই আমাদের নেত্রীকে মুক্ত করে আনতে হবে। আর নেত্রীকে মুক্ত করে দেশে সুষ্ঠ নির্বাচনের জন্য একটি গণতান্ত্রিক পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে। এই স্বৈরাচারী সরকারের আধীনে আর কখনই নির্বাচন হতে দেয়া যাবেনা।

কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচী অনুযায়ী সোমবার (৯ জুলাই) নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের পাশে অবস্থিত প্যারাডাইজ কেবলস এর সামনে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার সু-চিকিৎসা ও নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে আয়োজিত প্রতীকী অনশন কর্মসূচীতে তিনি এসব কথা বলেন।

বর্তমান সরকারের অধীনে বিএনপি কোনো নির্বাচনে অংশগ্রণ করবে না বলে ঘোষণা  দিয়ে অধ্যাপক মামুন মাহমুদ বলেন, ঝড়-বৃষ্টিকে উপেক্ষা করেই গণআন্দোলনের মধ্য দিয়ে আমরা আমাদের নেত্রীকে মুক্ত করে আনবো। প্রয়োজনে এই গণআন্দোলনের মাধ্যমেই আমরা ভোটারবিহীন এই সরকারকে উৎখাত করে দেশে আবারো গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করবো ইনশাআল্লাহ।
মামুন মাহমুদের সঞ্চালনায় এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জেলা বিএনপিরসহ সভাপতি এড. আজাদ বিশ্বাস, মনিরুল ইসলাম, রবি, ব্যারিষ্টার পাভেজ, লুৎফর রহমান, আব্দুল হাই রাজু, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল আমিন সিকদার, যুবদল নেতা আশরাফুল হক রিপন, শহিদুর রহমান স্বপন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আনোয়ার সাদাত সায়েম, জেলা শ্রমিক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক মন্টু মেম্বার, জেলা মহিলা দলের সভাপতি নুরুন্নাহার বেগম, সাধারণ সম্পাদক রহিমা শরীফ মায়া, জেলা ছাত্র দলের সভাপতি মশিউর রহমান রনি, সাধারণ সম্পাদক খাইরুল ইসলাম সজিব, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান শান্ত প্রমূখ।