ফতুল্লায় গাঁজা সহ মা -ছেলেকে আটক করেছে গোয়েন্দা পুলিশ

ষ্টাফ রিপোর্টার (আজকের নারায়নগঞ্জ ): ফতুল্লায় ডিবি(গোয়েন্দা) পুলিশের একটি বিশেষ অভিযানে মা ও ছেলেকে ৮০০গ্রাম গাজা সহ আটক করেছে।

মঙলবার(৯জুলাই)নারায়নগঞ্জ গোয়েন্দা শাখা(ডিবি)পুলিশ গাজা সহ দুপুরে আসামীরা জামিন পেয়ে পলাতক হবার সম্ভাবনায় আসামীদের যাতে জামিন না মঞ্জুর করা হয় তার অনুরোধ করে আসামীদের আদালতে প্রেরন করে।

আদালতে প্রেরনকৃত আসামীরা হলো ফতুল্লার শিবু মার্কেটের লামাপাড়া এলাকার মোঃহারুন মিয়ার স্ত্রী মোসাঃ রুপ নাহার বেগম(৪৫) ও হারুন মিয়ার ছেলে মোঃআরিফ হোসেন(২৯)

এজাহারে উল্লেখ্য ৮জুলাই সন্ধ্যা পৌনে ৬টায় ফতুল্লা থানাধীন শিবু মার্কেট এর লামাপাড়া এলাকায় জেলা গোয়েন্দা(ডিবি)পুলিশের একটি টিম বিশেষ অভিযান চালিয়ে মৃত আনোয়ার আলীর ছেলে মোঃহারুন মিয়ার বাসায় চাষকৃত গাজা গাছ যার গাজার ওজন ৩০০গ্রাম সহ রুপ নাহার বেগম ও ছেলে মোঃআরিফের দেহ তল্লাশী করে পলিথিনে মোড়ানো ৫০০গ্রাম গাজা মোট ৮০০গ্রাম গাজা জব্দ করে।যার মূল্য ১০হাজার টাকা।

পুলিশ বাদী হয়ে ২০১৮ সনের মাদক নিয়ন্ত্রন আইনের ৩৬(১)এর টেবিল ১৮(ক)/১৯(ক) ধারায় মামলা করেন মামলা নং ৪১ তারিখ ১৯/০৭/১৯।প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামীরা স্বীকার করে তারা পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক ব্যবসায়ী দলের সক্রিয় সদস্য।দীর্ঘ দিন যাবৎ গাজা গাছের চাষসহ মাদক জাতীয় গাজা বিক্রয় করে এলাকার যুব সমাজ ধ্বংসের দিকে ধাবিত করছে।আসামী জামিনে মুক্তি পেয়ে পলাতক হবার সম্ভাবনা রয়েছে তাই আসামীদের যাতে জামিন না মঞ্জুর করা হয় তার অনুরোধ করে আদালতে প্রেরণ করেন গোয়েন্দা পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে আরো জানা যায় আসামীরা প্রায় ৩৫-৪০বছর যাবত গাজা বিক্রি করছে।পরিবারে সকল সদস্য দ্বারা গাজার ব্যবসাটি পরিচালিত হচ্ছে।তবে বাচ্চা এবং মহিলাদের মাধ্যমে সরবরাহ ও বিক্রির কাজটি করছে আসামীরা।এলাকাবাসী ক্ষেপ্ত তাদের মাদক ব্যবসার ফলে এলাকায় ছেলেরা মাদকে আসক্ত হচ্ছে।আসামীদের জামিন না মঞ্জুর করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির অনুরোধ করছে এলাকাবাসী।তাদের একটায় দাবী মাদক মুক্ত এলাকার জন্য।