বিতর্কিত ম্যাক্স হাসপাতালে র‌্যাবের অভিযান, ১০ লাখ টাকা জরিমানা

আজকের নারায়নগঞ্জঃ  চট্টগ্রাম নগরীর বিতর্কিত ম্যাক্স হাসপাতালে অভিযান চালিয়ে নানা অনিয়মের অভিযোগে  ১০ লাখ টাকা জরিমানা করেছে র‌্যাব-৭এর ভ্রাম্যমান আদালত । রোববার বেলো ১১ টাকা থেকে অভিযানটি  শুরু হয়। অভিযানে নেতৃত্ব দেন ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারওয়ার আলম। অভিযানে সহযোগিতা করছেন ঢাকার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রতিনিধি ডা. দেওয়ান মো. মেহেদি হাসান।

এর প্রতিবাদে চট্টগ্রামের সব বেসরকারি হাসপাতাল-ক্লিনিকের চিকিৎসাসেবা বন্ধের ঘোষণা করেছে বেসরকারি চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান মালিক সমিতি।

এদিকে গেলো রোববার চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক বৈঠকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (হাসপাতাল ও ক্লিনিক) ডা. কাজী জাহাঙ্গীর হোসেন হাসপাতালটির নানান অনিয়ম তুলে ধরেন সাংবাদিকদের কাছে।
তিনি বলেন, ১৫০ শয্যার এ হাসপাতালে লাইসেন্স নবায়নে ত্রুটি, হাসপাতালের চিকিৎসক, কর্মকর্তা-কর্মচারীর কোনো নিয়োগপত্র না থাকা, প্যাথলজি বিভাগ ও চিকিৎসকের কোনো তথ্য নেই।
আগামী ১৫ দিনের মধ্য এসব অনিয়মের পক্ষে কোনো প্রমাণ না থাকলে এ হাসপাতাল বন্ধ করে দেয়া হবে বলে জানায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

আজ রোববার সকাল ১১টার নানা অভিযোগ এনে হাসপাতালটি বিরুদ্ধে জরিমান করা হয়। এরপরে দুপুরে নগরীর বিএমএ ভবনে অনুষ্ঠিত এক জরুরি সভা থেকে এ কর্মসূচি ঘোষণা দেয় হয়।

বেসরকারি চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ডা. লিয়াকত আলী বলেন, নগরীর বেসরকারি ম্যাক্স হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতাল ক্লিনিকে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানের প্রতিবাদে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কর্মসূচির অংশ হিসেবে নগরীর বিভিন্ন প্যাথলজিক্যাল ল্যাব ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সেবাও বন্ধ থাকবে।’ তবে বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালের জরুরি বিভাগে সেবা দেওয়া অব্যাহত রাখতে হবে বলে জানান তিনি।

এদিকে বেসরকারি চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান মালিক সমিতির এই সিদ্ধান্তে একাত্মতা জানিয়েছে বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) চট্টগ্রাম জেলা শাখা।

তথ্য ও ছবিঃ একুশে টিভি অনলাইন