টাইগারদের লড়াই সামাজিক মাধ্যমে ব্যাপক প্রশংসিত

ক্রীড়া ডেস্ক(আজকের নারায়নগঞ্জ):টাইগারদের প্রশংসা করে বৃহস্পতিবার রাতে নিজের ভেরিফায়েড টুইটারে ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে দ্রুত গতির বোলার শোয়েব আখতার বলেছেন, বাংলাদেশ ক্রিকেট দল আরও একটি দারুণ ম্যাচ খেলেছে।

বিশ্বকাপের ইতিহাসে সবচেয়ে দ্রুত গতিতে বল করে রেকর্ড গড়া শোয়েব আখতার আরও বলেন, মাশরাফিরা বোলিংয়ের সময়ে যদি শেষ কয়েক ওভারে অতিরিক্ত রান না দিত তাহলে অস্ট্রেলিয়া ৩৮১ রান করতে পারত না। শেষ দিকে তাদের বাজে বোলিংয়ের কারণে রানের পাহাড় গড়ে অস্ট্রেলিয়া। অসম্ভব টার্গেট তাড়া করতে নেমেও টাইগারারা দারুণ ব্যাটিং করেছে। বড় দলের মতোই লড়াই করেছে।

তবে স্কোরকার্ড বলছে ম্যাচে জয়ী দলের নাম অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু এ ম্যাচটা তো হেরেও অনেকের কাছে জিতে গেছে বাংলাদেশ। লক্ষ্য ছিল পাহাড় সমান, সংখ্যায় যেটা ৩৮২। বিশ্বকাপের ৪৪ বছরের ইতিহাসে এত রান তাড়া করে জয়ের নেই কোনো নজির। কিন্তু বড় টার্গেট দেখেও ভয় পায়নি বাংলাদেশ। লড়াই করে গেছে শেষ পর্যন্ত।

 

তবে পার্থক্যটা গড়ে দেয় দুই দলের শেষ ১০ ওভার। আগে ব্যাট করা অজিরা শেষ ১০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে তুলেছিল ১৩১ রান। অপরদিকে বাংলাদেশ শেষ ১০ ওভারে ৪ উইকেটে তুলে ৮৮ রান।

পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন অজিদের বিপক্ষে মুশফিক, মাহমুদুল্লাহদের লড়াই শুধু বাংলাদেশেই না, মন জয় করেছে আপামর ক্রিকেট ভক্তদের। তাই তো ম্যাচ শেষে বাংলাদেশ ক্রিকেটের প্রশংসা করতে এতটুকু কার্পণ্য করেনি অন্য দেশের সমর্থকরাও।

তবে অন্য সবার চেয়ে একটু আলাদা করে নজর কেড়েছেন মুশফিকুর রহিম। বিশ্বকাপে পেয়েছেন নিজের প্রথম সেঞ্চুরি। দলকে জেতাতে না পারলেও তার ইনিংসটাই বাংলাদেশকে ম্যাচে রেখেছিল শেষ পর্যন্ত। আর তাই তো ম্যাচ শেষে ফিঞ্চ, ওয়ার্নার তো বটেই দক্ষিণ আফ্রিকার হাশিম আমলা এবং রবি ফ্রাইলিঙ্কও তাদের ফেসবুক পেজে মুশফিক এবং বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে অভিভাদন জানিয়েছেন। রমিজ রাজা এবং মাইক হাসিও প্রশংসা করেছেন বাংলাদেশের হার না মানা মনোভাবের।