সোনারগাঁয়ে যুবলীগ ও আওয়ামীগ নেতার বিরুদ্ধে থানায় চাদাঁবাজীর অভিযোগ

 

সংবাদদাতা, সোনারগাঁঃ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার বৈদ্যেরবাজার এলাকায় যুবলীগ নেতা ও আওয়ামীলীগের নেতার বিরুদ্ধে চাদাঁ দাবি করায় থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার জাকির হোসেন বাদি হয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

জানা যায়, উপজেলার বৈদ্যেরবাজার খেয়াঘাটের ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের জন্য জেলা পরিষদ থেকে ইজারা নেন পিরোজপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি জাকির হোসেনের ভাগিনা সৈকত হোসেন। গত ২৮ জুন জেলা পরিষদ থেকে সব্বোচ দরদাতা হিসেবে খেয়াঘাটের ইজারা নেন। গত ১ জুলাই থেকে জাকির হোসেনের লোকজন ঘাটের দায়িত্ব নিয়ে কার্যক্রম শুরু করলে তাদের কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা চাদাঁ দাবি করেন বৈদ্যেরবাজার এলাকায় চাদাঁবাজ হিসেবে খ্যাত যুবলীগ নামধারী নেতা হামিদুল ইসলাম ও আওয়ামীলীগের নামধারী নেতা জাহাঙ্গীর হোসেন। এ চাদাঁ দিতে তারা অস্বীকার তাদের লোকজনকে মারধর ও হত্যার হুমকি দেন এবং ওই এলাকার স্থানীয় চাদাঁবাজদের নিয়ে একটি নাটকীয় মানববন্ধন করেন। এ ঘটনার পর জাকির হোসেন বাদি হয়ে হামিদুল ইসলামকে প্রধান আসামি করে করে থানায় একটি চাদাঁবাজীর অভিযোগ করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জাকির হোসেন বলেন, চাদাঁবাজ হামিদুল ইসলাম ও জাহাঙ্গীর হোসেন দীর্ঘ দিন ধরে বৈদ্যেরবাজার ঘাটে যাত্রীদের হয়রানী করে চাদাঁবাজী করে আসছে। আমরা গত ১ তারিখ থেকে ইজারা নিয়ে ঘাটের দায়িত্ব নিলে তারা আমার কাছে ৫ লাখ টাকা চাদাঁদাবী করে। চাদাঁ দিতে অস্বীকার করায় আমার লোকজনকে মারধর ও হত্যার হুমকি দেয়।

সোনারগাঁ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোরশেদ আলম জানান, থানায় চাদাঁবাজীর অভিযোগ গ্রহন করা হয়েছে। চাদাঁবাজদের গ্রেফতার করার জন্য অভিযান চলছে।