যা দেখলাম তা অত্যন্ত দুঃখজনক -ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

ফতুল্লা(আজকের নারায়নগঞ্জ): ফতুল্লায় জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম ‘খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামের করুন অবস্থা দেখে দু:খ প্রকাশ করে  যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহ্সান রাসেল বলেছেন, এ  স্টেডিয়ামে ২০১০ সালে আন্তজার্তিক বিশ্বকাপ খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছিলো।

কিন্তু আজকে ৯ বছরের মাথায় এসে যা দেখলাম তা অত্যন্ত দুঃখজনক। স্টেডিয়ামের বেশিরভাগ অংশই প্রায় খেলা অনুপযোগী হয়ে গেছে। বিশেষ করে প্র্যাক্টিসের যে মাঠটি রয়েছে সেটা তো পানি নিচেই পরে আছে।

এছাড়া বেশি বৃষ্টি হলে স্টেডিয়ামের ভেতরে এমনকি মাঠেও পানি জমে যায়। ধীরে ধীরে মাঠটি ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়ছে। আমরা এ মাঠটিকে পুনরুদ্ধার করতে চাই।

শনিবার(১৫ জুন) ফতুল্লা খান সাহেব ওসমান আলী ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত বিএসবি ফাউন্ডেশন স্কুল ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট-২০১৯ ফাইনালের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান শেষে গণমাধ্যম কর্মীদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

তিনি বলেন, ইতিমধ্যেই বুয়েটের সাথে এ ব্যাপারে কথা হয়েছে। তাদের কাছে কারিগরি সহায়তা চাওয়া হয়েছে। তাদের কার্যক্রম শেষে আমাদের কাছে যে সকল দিক উপস্থাপন করবে আমরা সে আলোকেই মাঠটি সাজাবো। আমরা এ মাঠটিকে ঢেলে সাজানোর চিন্তা করছি।

সেই ২০১০ সালে চিত্র পুনরুদ্ধার করতে চাই। আমরা এ স্টেডিয়াম নিয়ে অনেক স্বপ্ন দেখেছিলাম। সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে চাই। সেই লক্ষ্যেই আমাদের আজকের এ আয়োজন।

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, শুধু খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম বা শেরেবাংলা স্টেডিয়াম নয় বাংলাদেশ সরকার অন্য স্টেডিয়ামগুলোও নির্মাণের নির্দেশ দিয়েছেন। পূর্বাচলে আমরা অত্যাধুনিক ও আন্তজার্তিক মানের একটি ক্রিকেট স্টেডিয়াম তৈরী করতে চলেছি।

পাশাপাশি কক্সবাজারেও একটি পূর্ণাঙ্গ স্টেডিয়াম নির্মাণ করতে যাচ্ছি। এমনি করে অন্যান্য খেলাধুলা,বিভিন্ন ঘরোয়া খেলাধূলার সুযোগ-সুবিধাসহ স্টেডিয়াম নির্মাণ করা হবে।

এ সময় তিনি টুর্ণামন্ট প্রসঙ্গে বলেন, বিএসবির ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে আয়োজিত টুর্ণামেন্ট ক্রিকেট জগতে নতুন করে জাগরণ সৃষ্টি করবে। আমরা আশা করি এ ধরণের টুর্ণামেন্ট আরো অনুষ্ঠিত হবে। এ সকল টুর্নামেন্টের মধ্যে দিয়েই নতুন নতুন মেধাবী খেলোয়াড়রা বের হবে। যারা এক সময় বাংলাদেশের জাতীয় ক্রিকেট দলকে নেতৃত্ব দিবে।

বিএসবি ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান লায়ন এম কে বাশার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব ড. জাফর আহমেদ, নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সাংসদ লিয়াকত হোসেন খোকা,নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাহী মো. নিজামউদ্দীন চৌধুরী সুজন, নাজমুল আবেদীন,ক্রীড়া পরিষদের সচিব মাকসুদ করিমসহ প্রমুখ।

সকাল সাড়ে ১০টায় জাতীয় সংগীত ও বেলুন উড়ানোর মধ্যে দিয়ে ফাইনাল টুর্ণামেন্ট উদ্বোধন করা হয়। উল্লেখ্য, ঢাকা ও তার আশেপাশের ৬৪ টি স্কুলের ক্রিকেট দলের অংশগ্রহণে ক্ষুদে ক্রিকেটারদের প্রতিভা অন্বেষণ ও অধিকতর সম্পৃক্তকরণ করতে স্কুল ক্রিকেট-২০১৯ টুর্নামেন্ট এর আয়োজন করা হয়।

গত ১৬ মার্চ বিএসবি ফাউন্ডেশনের আয়োজনে গাজীপুর শহীদ বরকত স্টেডিয়ামে আনুষ্ঠানিক ভাবে শুভ উদ্বোধন করেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল। এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, গাজীপুর জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ুন কবীর।