জো রুটের পারফরম্যান্সে ক্যারিবিয়ানদের হারালো ইংল্যান্ড

ক্রীড়া ডেস্ক(আজকের নারায়নগঞ্জ):বিশ্বকাপের রঙ যেন ক্ষণে ক্ষণে বদল হচ্ছে। ইংল্যান্ডের মাঠগুলো রানপ্রসবা। সেই হিসেবে ক্যারিবীয় ব্যাটারদের সবচেয়ে বেশি সুবিধা পাবার কথা বিলেতের মাটিতে। কিন্তু হচ্ছে উল্টোটা। সাউদাম্পটনের রোজ বোলে আজ দাড়াতেই পারেনি গেইল-রাসেলরা।

জো রুটের অল-রাউন্ডার পারফরম্যান্সে ম্যাচটা জিতেই মাঠ ছাড়ল স্বাগতিকরা। জো রুটের ব্যাটে, বলে, ফিল্ডিংয়ে নাচল ক্যারিবীয়রা।

স্বাগতিক ইংল্যান্ডের কাছে টসে হেরে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ পায় উইন্ডিজ। তাতে গোটা পঞ্চাশ ওভারও খেলতে পারেনি ক্রিস গেইল, শাই হোপ, কার্লোস ব্রেথওয়েটে সাজানো লম্বা ব্যাটিং লাইন-আপের ক্যারিবীয় দলটা।

শুরুতে গেইল কিছুটা মন্থর থাকলেও জ্বলে উঠে নিভে গেলেন। ৪১ বলে ৩৬ রান করে বিদায় নেন লিয়াম প্লাঙ্কেটের বলে।

মাঝে নিকোলাস পুরানের ব্যাটেই আসে ক’টা রান। ৭৮ বলে খেলে করেন ৬৩ রান। এছাড়া শিমরণ হেটমেয়ার ৩৯, আন্দ্রে রাসেলের ২১ রানে ভর করে ৪৪ ওভার ৪ বলে ২১২ রানে অল-আউট হয়ে যায় দুই বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

স্বদেশী জোফরা আর্চার নেন ৩ উইকেট, ৩ উইকেট নেন মার্ক উডও। ২ উইকেট নেন জো রুট আর ১টি করে উইকেট নেন ক্রিস ওকস আর লিয়াম প্লাঙ্কেট।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে ইংলিশ দুই ওপেনার করেন ৯৫ রান। জনি বেয়ারেস্ট্রোকে ৪৫ রানে ফিরিয়ে উদ্বোধনী জুটি ভাঙ্গেন শেনন গ্যাব্রিয়েল। প্রথম জুটি ভেঙ্গে যেন বিপদ ডেকে আনার মতো অবস্থা। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে আসে ১০৫ রান!

রুট অনায়াসে শতক তুলে নেন ক্যারিবীয় বোলারদের একের পর এক বাউন্ডারি পার করে। ক্রিস ওকস ৪০ রান করে সাজঘরের পথ ধরলে তখন দলের জয় পেতে লাগে কেবল ১৪ রান।

রুট আর আউট হননি বরং বেন স্টোকসকে নিয়ে ৩৩ ওভার ১ বলেই জয় তুলে নেন ৮ উইকেট হাতে রেখে। ক্যারিবীয়দের হয়ে দুটি উইকেটই নেন শেনন গ্যাব্রিয়েল।

এই জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলে স্বাগতিকদের অবস্থান এখন দুইয়ে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ওয়েস্ট ইন্ডিজ: ৪৪.৪ ওভারে ২১২/১০ (পুরান ৬৩, হিতমার ৩৯, গেইল ৩৬, রাসেল ২১, মার্ক উড ৩/১৮, জোফরা ৩/৩০)।

ইংল্যান্ড: ৩৩.১ ওভারে ২১৩/২ (জো রুট ১০০*, জনি বেয়ারস্টো ৪৫, ক্রিস ওকস ৪০, স্টোকস ১০*)।

ফল: ইংল্যান্ড ৮ উইকেটে জয়ী।