‘বাচাঁও বাঁচাও’ চিৎকারে জিম্মি উদ্ধার,অপহরনচক্র দম্পতি গ্রেফতার

সিদ্ধিরগঞ্জ(আজকের নারায়নগঞ্জ): শুক্রবার(১৪ জুন) বেলা সাড়ে ১১ টা। সিদ্ধিরগঞ্জের থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি মজিবর রহমানের ভাড়া বাড়ীর ৫ম তলার ফ্ল্যাট থেকে ‘বাচাঁও বাঁচাও’ চিৎকার শুনতে পেয়ে এলাকাবাসী পুলিশকে খবর দেয়।

খবর পেয়ে থানার সিদ্ধিরগঞ্জ সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মো: আবদুর রাজ্জাক বেলা ১২ টার দিকে ওই বাড়ীর ৫ তলার ভাড়াটিয়া মো: সজল ইসলামের ফ্ল্যাট বাসায় অভিযান চালায়। এসময় সেখানে জিম্মি থাকা ইমরান(২৮) নামে এক কাপড় ব্যবসায়ীকে ব্যাক্তিকে উদ্ধার করে পুলিশ। এ ছাড়াও  অপহরনকারী সজল ইসলাম (২৮) এবং তার স্ত্রী মৌসমী আক্তার মিতু (২৫) কে গ্রেফতার করে।

জিম্মি হয়ে থাকা অপহৃত ব্যবসায়ীর ইমরান নড়াইল জেলা সদর থানার আউরিয়া এলাকার মৃত রাঙ্গা মোল্লার ছেলে। অপহরণকারী মো: সজল হবিগঞ্জ জেলার আজমেরীগঞ্জ থানার রসুলপুর গ্রামের মো: তোতা মিয়ার ছেলে ও তার স্ত্রী মৌসমী আক্তার মিতু।

জানা গেছে,রাজধানী ঢাকার উত্তরখান থেকে অপহরণ করা হয় কাপড় ব্যবসায়ী ইমরান (২৮) কে। অপহরনের পর ইমরানকে আটকে রাখে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে জালকুড়ি সিকদারবাড়ী এলাকার আওয়ামীলীগ নেতা মজিবুর রহমানের ভাড়া বাড়ীর ৫ তলায়।

এরপর অপহরণকারীরা হত্যা করার হুমকি দিয়ে মোবাইল ফোনে ইমরানের স্বজনদের কাছে মুক্তিপণ দাবি করে। ইমরানকে ফিরে পেতে স্বজনরা দু’দফায় বিকাশে ২৫ হাজার টাকা মুক্তিপণও দেয়। তারপরও ইমরান না ছেড়ে আরো টাকা দাবি করে অপহরনকারীরা।

এদিকে ইমরানের উদ্ধারের সংবাদ পেয়ে তার স্বজনরা সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় ছুটে আসেন। তারা জানান, গত ১১ জুন সকাল ৯ টার দিকে ঢাকার উত্তর খান থানার চামুরখান মোড় এলাকা থেকে ইমরান অপহৃত হয়। অপহরণকারীদের দু’দফায় বিকাশে ২৫ হাজার টাকা মুক্তিপণও দেয়া হয়। তারপরও ইমরান না ছেড়ে আরো টাকা দাবি করে অপহরনকারীরা।

এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহীন পারভেজ জানান, অপহরণের ঘটনার সাথে জড়িত থাকায় সজল ইসলাম ও তার স্ত্রী মিতুকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ঘটনার সাথে জড়িত রয়েছে একটি সঙ্গবন্ধ চক্র। বাকীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।