নওগাঁর মান্দায় অপহরন মামলায় জামাই আটক, মেয়ে উদ্ধার!

 

মাহবুবুজ্জামান সেতু,নওগাঁ প্রতিনিধি: নওগাঁর মান্দায় অপহরনের মামলা এবং মুক্তিপনের টাকা দাবি করায় অপহৃত ১ স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ! স্কুল ছাত্রীর বাবা কসব ইউ’পির তুড়ুকবাড়িয়া গ্রামের প্রবাসী হেলাল উদ্দিন বাদী হয়ে এ অপহরণ ও মুক্তিপনের টাকা দাবীর মামলা দায়ের করেন মামলা নং- ২৭।

ঘটনাসূত্রে জানা যায়, অপহৃত স্কুল ছাত্রীর বাবা একজন প্রবাসী। তিনি মালয়েশিয়ায় থাকতেন। তিনি বিয়ে করেছেন ঢাকার নারায়নগঞ্জের আড়াইহাজার থানায়। বিয়ের বেশকিছুদিন পর স্ত্রী এবং সন্তান রেখে বিদেশে পাড়ি জমান তিনি। ছোট্ট মেয়েটিি আস্তে আস্তে বড় হতে থাকে। পরবর্তীতে বড় হবার পর মেয়েকে ওই গ্রামেরই তুড়ুকবাড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে ভর্তি করিয়ে দেয়া হয়।

বর্তমানে ৮ম শ্রেনীতে লেখাপড়া করাবস্থায় প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পরে হেলালের মেয়ে ডলিসায়ান্তনী( ১২) । পরবর্তী পিতামাতার অসম্মতিতে পালিয়ে গিয়ে বিয়ে করে ডলি। বিয়ের পর থেকে শুরু হয় নির্যাতন অার মুক্তিপন দাবী। এমন অত্যাচারে বিদেশ থেকে ফিরে এসে মেয়ের বাবা কৌশলে মেয়েকে ফিরে পেতে পুলিশের স্বরনাপন্ন হয়। পরে পুলিশের এসআই আলমগীর সঙ্গীয় ফোর্সসহ গতকাল বৃহস্পতিবার রাজশাহীর বাগমারা থেকে হেলালের মেয়ে ডলীকে উদ্ধার এবং অপহরন মামলায় তার জামাইকে থানায় আটক করে নিয়ে আসেন।

অপহৃত স্কুল ছাত্রীর মা জানায়, আমাদের মেয়ে ভালোই ছিলো। কিন্তু বেশকিছুদিন পূর্বে আমাদের বাসার পাশে অপহরণকারী শামীম হোসেন (২৫)খালার বাড়িতে অবস্থান নেয় । অপহরনকারীর গ্রামের বাড়ি রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার পিদ্দপাড়ায়। তার বাবার নাম আব্দুল লতিফ। পরবর্তীতে আমাদের মেয়ের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে। আমাদের ইচ্ছামতে তার সাথে মেয়েকে বিয়ে দিতে না চাওয়ায় ও আমাদের মেয়েকে অপহরন করে নিয়ে যায় এবং মুক্তিপনের টাকা দাবী করে বসে।

এব্যাপারে মান্দা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোজাফ্ফর হোসেন বলেন, ঘটনা সত্য। এঘটনায় অপহৃত মেয়েকে উদ্ধারসহ অপহরনকারীকে আটক করে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে।