পাকিস্তানকে ৪১ রানে হারিয়ে জয়ের ধারায় অস্ট্রেলিয়া

ক্রীড়া ডেস্ক(আজকের নারায়নগঞ্জ): ভারতের বিরুদ্ধে হারের পর অস্ট্রেলিয়ার জন্য ঘুরে দাঁড়ানোটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল। সামনে ছিল প্রতিপক্ষ পাকিস্তান । যারা কী করবে তা আগে থেকে অনুমান করা খুবই কঠিন। বুধবার যদিও প্রকৃতি বাধ সাধেনি পাকিস্তান-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচে। পুরো ম্যাচই খেলা হয়েছে।

এ দিন টস জিতে প্রথমে অস্ট্রেলিয়াকেই ব্যাট করতে পাঠিয়েছিল পাকিস্তান অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ । প্রথমে ব্যাট করে অস্ট্রেলিয়া ৩০৭ রান তুলে নেয় ৪৯ রানে। আরও এক ওভার খেলতে পারলে তা আরও বাড়ত। কিন্তু ৪৯ ওভারে অল-আউট হয়ে যায় ফিঞ্চের দল। যত ভাল শুরু করেছিল ততটাই খারাপ শেষ করল অস্ট্রেলিয়া, যদিও ততক্ষণে বড় রানে পৌঁছে দিয়েছে দুই ওপেনার। সেই লক্ষ্যে নেমে ৪৫.৪ ওভারে ২৬৬ রানে শেষ হয়ে যায় পাকিস্তান। ৪১ রানে পাকিস্তানকে হারিয়ে জয়ে ফিরল অস্ট্রেলিয়া।

অ্যারন ফিঞ্চ ও ডেভিড ওয়ার্নার ধির গতিতেই শুরু করেছিল। ঠিক আগের ম্যাচে যেভাবে শুরু করে রানের পাহাড় গড়েছিল ভারত সেই পথেই হাঁটতে শুরু করেছিল দুই ওপেনার। অধিনায়ক ফিঞ্চ ৮৪ বলে ৮২ রানের ইনিংস খেলে আউট হন। উল্টোদিকে তখন একই ছন্দে ব্যাট করছিলেন ডেভিড ওয়ার্নার। ১১১ বলে তাঁর ব্যাট থেকে আসে ১০৭ রান।

এর পর আর কেউ দাঁড়াতে পারেননি অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ব্যাট হাতে। তবে দরকারও হয়নি। কিন্তু যেভাবে অস্ট্রেলিয়ার বাকি ব্যাটিং লাইন আপে ধস নামল তা টিম ম্যানেজমেন্টের কপালে ভাজ পড়ার জন্য যথেষ্ট। দলের ৩০৭ রানের মধ্যে ১৮৯ রানই এসেছে দুই ওপেনারের ব্যাট থেকে। বাকি রান করতে ৪৯ ওভারে অল-আউট হয়ে গিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার বাকি ব্যাটসম্যানরা।

স্টিভ স্মিথ ১০, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ২০, শন মার্শ ২৩, উসমান খোয়াজা ১৮, অ্যালেক্স ক্যারি ২০, নাথান কুল্টার-নাইল ২, প্যাট কামিন্স ২, মিচেল স্টার্ক ৩ রান করে আউট হয়ে যান।

পাকিস্তানের হয়ে বল হাতে আবারও সফল মহম্মদ আমির। পাঁচ উইকেট নেন তিনি। দুই উইকেট শাহিন আফ্রিদির। একটি করে উইকেট নেন হাসান আলি, ওয়াহাব রিয়াজ ও মহম্মদ হাফিজ।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে পাকিস্তান ওপেনার ফখর জামান কোনও রান না করেই ফিরে যান প্যাভেলিয়নে। কিন্তু হাল ছাড়েননি আর এক ওপেনার ইমাম-উল-হক। ৭৫ বলে ৫৩ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। তাঁকে সাময়িক সঙ্গ দেন বাবর আজম। ২৮ বলে ৩০ রান করে আউট হন তিনি। তাঁর পর ৪৯ বলে ৪৬ রান করেন মহম্মদ হাফিজ। শোয়েব মালিক ০, আসিফ আলি ৫, হাসান আলি ৩২ ও ওয়াহাব রিয়াজ ৪৫, মহম্মদ আমির ০ রান করে আউট হন। অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ ৪০ রান করে আউট হন।

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে তিন উইকেট নেন প্যাট কামিন্স। দুই উইকেট কেন রিচার্ডসনের ও মিচেল স্টার্ক। একটি করে উইকেট নেন নাথান কুল্টার-নাইল ও অ্যারন ফিঞ্চ।

পাকিস্তান: ইমাম-উল-হক, ফখর জামান, বাবর আজম, মহম্মদ হাফিজ, সরফরাজ আহমেদ (অধিনায়ক), শোয়েব মালিক, আসিফ আলি, ওয়াহাব রিয়াজ, হাসান আলি, শাহিন আফ্রিদি, মহম্মদ আমির।

অস্ট্রেলিয়া: ডেভিড ওয়ার্নার, অ্যারন ফিঞ্চ (অধিনায়ক), শন মার্শ, স্টিভেন স্মিভ, উসমান খোয়াজা, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, অ্যালেক্স ক্যারি, নাথান কুল্টার-নাইল, প্যাট কামিন্স, মিচেল স্টার্ক, কেন রিচার্ডসন।