ডিজিটাল হাজিরা মেশিন উদ্বোধনহয়েছে একরামপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে

 

সংবাদদাতাঃ,বন্দরঃ  বন্দরে একরামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ডিজিটাল হাজিরা মেশিন স্থাপনার শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে। এখন থেকে ঐ বিদ্যালয়ের প্রতিটি শিক্ষক-শিক্ষিকাকে ডিজিটাল মেশিনে পুঁশ করে তাদের হাজিরা নিশ্চিত করতে হবে।

৪ জুলাই বুধবার সকাল ১১টায় নাসিক ২৩নং ওয়ার্ডস্থ একরামপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে ফিতা কেটে আনুষ্ঠানিকভাবে ডিজিটাল হাজিরা মেশিনের শুভ উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি বন্দর উপজেলা নির্বাহী অফিসার পিন্টু বেপারী।

উদ্বোধন পূর্বে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পিন্টু বেপারী বলেন, এই বিদ্যালয়ে ডিজিটাল হাজিরা মেশিন স্থাপনার মধ্যে দিয়ে আরও একধাপ এগিয়ে গেল এ বিদ্যালয়টি। ডিজিটাল হাজিরা মেশিনের মাধ্যমে খুব সহজেই জানা যাবে শিক্ষক-শিক্ষিকাদের বিদ্যালয়ে উপস্থিতর নির্ধারিত সময়সূচি। পর্যায়ক্রমে শিক্ষার্থীদেরও এই ডিজিটাল হাজিরা মেশিনের আওতায় আনা হবে ।

পিন্টু বেপারী অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে বলেন, আমি আমার সন্তানকে ন্যাশনাল জিওগ্রাফি চ্যানেল দেখাই ও কার্টুনের মাধ্যমে শিক্ষণীয় অনেক কিছু শিখাই। বাচ্চারা ন্যাশনাল জিওগ্রফি চ্যানেল থেকে ঘরে বসেই জীব-জন্তু দেখতে পাচ্ছে ও তাদের পরিচয় জানতে পারছে। আপনারা স্টার জলসা চ্যানেল দেখবেন না এসব চ্যানেল থেকে আপনি-আপনার সন্তানরা কি শিখছেন। স্টার জলসায় ভালো কিছু শিখায়না কি শিখায় একজন বিয়ে করলে কিভাবে তাঁর সংসার ভাঙা যায় এবং একটি বিয়ে করলে কিভাবে আরও একটি বিয়ে করা যায়। যদি মনে করেন এসব চ্যানেলে ভালো কিছু দেখায় তাহলে দেখেন তা নাহলে দেইখেননা। আমরা পত্রিকা খুললেই দেখি কি পরকিয়া, সন্ত্রাস, খুন কারন কি এগুলা আপনারা শিখেন।  শিখেন টিভি দেখেই শিখেন। তাই আপনাদের কাছে আমার অনুরোধ এসব চ্যানেলে সময় ব্যয় না করে আপনার সন্তানকে সময় দিন। ওরাই আগামী দিনের ভবিষ্যত । তাই দেশের একজন সুনাগরিক হিসেবে আপনার সন্তানকে গড়ে তুলুন।

পরিশেষে শিক্ষার্থীদের সাথে কুচ কাওয়াজ ও জাতীয় সংগীতে অংশগ্রহণ করেন। এবং শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যত পরিকল্পনা ও তাদের পারিবারিক খোঁজ খবর নেন।

জসিম উদ্দিন প্রধানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন উপজেলা শিক্ষা অফিসার ফেরদৌস আরা বেগম ও নাসিক ২২,২৩,২৪ নং ওয়ার্ড সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর শাওন অংকন। বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা কাজী ইয়াসমিনের পরিচালনায় অন্যান্যোর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ জাকির হোসেন, বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সহ-সভাপতি নবি আউয়াল, পিটিএ কমিটির সদস্য শরিফ হাসান চিশতী, সানজিদা শরিফ চিশতী, ফারুক আহমেদ ভূঁইয়া, লিপি বেগম, মোঃ নজরুল ইসলাম ও শফিকুল ইসলাম। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা সুফিয়া আক্তার, দিল আফরোজা, বিলকিস বানু, জাকির সুলতানা, আজমেরী বেগম, রোকসানা আক্তার, মাহমুদা সুলতানা, সেলিনা আক্তার, করিমা রাইসা, শিরিন আফরোজা লিপি, কাজী রাইসা, শাহনাজ পারভীন , সাহিদা আক্তারসহ অভিভাবকবৃন্দ। এছাড়া বিদ্যালয়ে ডিজিটাল মেশিন স্থাপনায় টেকনিশিয়ান সহযোগিতা করেন মোঃ আজাদ হোসেন।