জন্মের পর এই প্রথম ঈদের দিন বাবা বন্দী

আজকের নারায়নগঞ্জ ডেস্ক:

জন্মের পর এই প্রথম ঈদের দিন বাবা বন্দী
————————————————

ডেপুটি জেলারের রুদ্ধ কক্ষে মিষ্টি একটা হাসি নিয়ে বাবা ঢুকলেন … পরনে শুভ্র পাঞ্জাবি … চুল ব্যাকব্রাশ … মাথায় হাত বুলিয়ে বললেন – মা , ঈদ মোবারক , এবার তোমাদের কিছুই দেয়া হলোনা , পাওনা রইলো সব কেমন ? … মার দিকে তাকিয়ে কি যেন একটা হাতে গুজে দিলেন … অবাক ব্যাপার ! একটা সুন্দর লাল পাড়ের জামদানি ! জেলের ভেতর অর্ডার দিয়েছে মাকে ঈদে দিবে বলে … মার চোখের কোণে কি যেন ছলছল করছে … এমন একটা মানুষকে একদিন ভালবেসে নাকি হাজার বছর অপেক্ষা করা যায় …
আজ আমাদের রুদ্ধ ঈদ … তিনজন এপাড়ে , আত্না ওপাড়ে …
সকাল থেকে এখানেই আছি … নারায়ণগঞ্জ জেলা কারাগার … আকাশটাও অঝর ধারায় কেঁদে চলছে … আমরা তাকিয়ে আছি সেদিকে … বৃষ্টির ফোঁটায় চোখের পানি আড়াল হয়ে যাচ্ছে তিনজনের … খারাপ না ব্যাপারটা …
সবাইকে একগুচ্ছ বিপ্লবী ঈদের শুভেচ্ছা ।
:- সূচনা (হাবিব উন নবী খান সোহেলের মেয়ে)

 

এভাবেই ঈদের দিন নারায়নগঞ্জ জেলা কারাগারে বন্দী বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি হাবিব উন নবী সোহেলের সাথে তার পরিবারের সদস্যরা দেখতে এসে তার মেয়ে সূচনার  আবেগঘন স্ট্যাটাস ।

প্রসঙ্গত: গত ৫ ফেব্রুয়ারি হাবিব উন নবী খান সোহেলকে তুলে নেওয়ার অভিযোগ করেছিল বিএনপি। পরে তাঁর মেয়ে জানান, তিনি নিরাপদ আছেন। এরপর দীর্ঘদিন আত্মগোপনে ছিলেন ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি হাবিব উন নবী খান সোহেল। সবশেষ খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর তাঁর মুক্তির দাবিতে বেশ কয়েকটি কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন সোহেল।

সেখানে বিএনপির মানববন্ধন চলাকালে সোহেলকে আটকের চেষ্টা করে গোয়েন্দা পুলিশ। তবে সবার চোখে ধুলো দিয়ে পালিয়ে যান তিনি। এরপর আর জনসমক্ষে তাঁকে দেখা যায়নি। সব শেষ গত ১ সেপ্টেম্বর নয়াপল্টনে বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর জনসভায় তিনি বক্তব্য দেন। এরপর আবার চলে যান আত্মগোপনে। এর ১৭ দিন পর ১৮ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় রাজধানীর গুলশানের গোল চত্বর থেকে তাকে আটক করে পুলিশ।

ছাত্রদলের সাবেক এ সভাপতি বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা দক্ষিনের সভাপতি সোহেলের বিরুদ্ধে ১৪৩টি মামলা রয়েছে। তবে তার পরিবারেরদাবি এ সকল মামলায় তিনি