গুরুতর অসুস্থ শিমুল বিশ্বাস নারায়ণগঞ্জ কারাগারে !

আজকের নারায়নগঞ্জঃ  গুরুতর অসুস্থ বিএনপি চেয়ারপার্সনের বিশেষ সহকারী অ্যাডভোকেট শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাসকে চিকিৎসা না করিয়ে আবারো নারায়ণগঞ্জ কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শিমুল বিশ্বাসের আইনজীবী এডভোকেট জয়নাল আবেদীন মেসবাহ, ব্যারিস্টার মীর হেলাল ও তার আত্মীয় সরদার মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর গতকাল সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করে বলেন, নারায়ণগঞ্জ কারাগারে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে শিমুল বিশ্বাসকে চিকিৎসার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে ইকো টেস্টে তার হার্টে ছিদ্র ধরা পড়ে। কিন্তু কোন চিকিৎসা দেয়া
হয়নি। কার্ডিওলজি বিভাগেও নিতে দেয়া হয়নি।

চিকিৎসকরা জানান, শিমুল বিশ্বাসের প্রস্রাবে সমস্যা, স্কিনে সমস্যা, ডায়াবেটিস বেড়ে গেছে। দুই হাত-পা, চোখ ফুলে গেছে। প্রেসারও হাই।

শিমুল বিশ্বাসের পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, ডাক্তাররা তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেন। আলট্রাসনোগ্রাম, এমআরআইসহ ৫-৬ ধরনের টেস্ট দেন, টেস্ট করানোর জন্য তার আত্মীয় জাহাঙ্গীর টাকাও জমা দেন। কিন্তু টেস্ট না করিয়ে এবং কোন ব্যবস্থাপত্র না দিয়ে শিমুল বিশ্বাসকে রোববার তড়িঘড়ি করে পুলিশ কেরানীগঞ্জ কারাগারে নেয়। সেখানে অসুস্থ শিমুল বিশ্বাসকে কিছুক্ষন বসিয়ে রেখে নারায়ণগঞ্জ কারাগারে নেয়া হয়।

গতকাল তার সাথে সাক্ষাত করে এসে সরদার মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর জানান, শিমুল বিশ্বাসের শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটেছে। হাটাচলা করতেও তার সমস্যা হচ্ছে। হাত-পা-চোখ ফুলে গেছে। কথা বলতে কস্ট হচ্ছে। তার দ্রুত উন্নত চিকিৎসার জন্য কোন বিশেষায়িত হাসপাতালে ভর্তি করা জরুরি বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। কিন্তু আমরা সরকারের কাছে বার বার আবেদন করেও কোন সাড়া পাচ্ছি না। তার পরিবার শারীরিক অবস্থা নিয়ে চরমভাবে উদ্বিগ্ন।

শিমূল বিশ্বাসের আইনজীবী ব্যারিস্টার মীর হেলাল জানান, নারায়ণগঞ্জ কারাগারে তার ওপর চালানো হচ্ছে মানসিক নির্যাতন। তাকে গত ৫ মাস ধরে একটি স্যাঁতসেঁতে ছোট অন্ধকার নির্জন কক্ষে রাখা হয়েছে। ডিভিশন প্রাপ্ত বন্দি মানুষ হিসেবে যতটুকু অধিকার পাওয়া কথা সেটি দেয়া হচ্ছে না। গত ৫ মাস ধরে কারাগারে নানাভাবে তাকে হয়রানি ও হেনস্থা করা হচ্ছে। নিম্ন আদালতে দীর্ঘদিন পর পর জামিনের তারিখ দেয়া হয় যাতে উচ্চ আদালতে প্রতিকার পাওয়ার সুযোগ না পায়। তার মামলার কাগজপত্রও সরকার দিচ্ছে না।

এদিকে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী এক বিবৃতিতে শিমুল বিশ্বাসের চিকিৎসা নিয়ে কারা কর্তৃপক্ষ ও সরকারের অবহেলায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। রিজভী অবিলম্বে শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাসের মুক্তি দাবি করেন এবং তার প্রতি সরকারের এহেন আচরণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।

তিনি বলেন, শিমুল বিশ্বাস বিএনপি চেয়ারপার্সনের বিশেষ সহকারী, তিনি দলের কোন পদে নেই। তারপরও তাকে কারাগারে দুর্বিসহ পরিবেশে রেখে সীমাহীন মানসিক নিপিড়ন চালানো হচ্ছে। তার নামে অসংখ্য মিথ্যা মামলা দেয়া হয়েছে। আদালতে তার মামলার জামিন নিয়ে টালবাহানা করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, গত ৮ ফেব্রুয়ারী বেগম জিয়ার সঙ্গে থাকা শিমুল বিশ্বাসকে আদালত প্রাঙ্গণ থেকে পুলিশ গ্রেফতার করে। এরপর তিন দফায় ১৯ দিন রিমান্ডে রাখা হয় তাকে। তখন তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন।