লড়াকু টাইগারদের নিয়ে যা বললেন নাসের হুসেইন- কোহলি

ক্রীড়া ডেস্ক(আজকের নারায়নগঞ্জ): বিশ্বকাপের ব্যাটিং স্বর্গে ২৪৪ রানে অলআউট ! স্কোরেবোর্ডে লড়াই করার মতো পুঁজি ছিল না। ভালো সংগ্রহ এনে দিতে পারেননি ব্যাটসম্যানরা। অধিকন্তু উইকেটে ছিল ব্যাটিং সহায়ক। মরার উপর আবার খাঁড়ার ঘা-গুরুতর ভুল করে বসেন উইকেটরক্ষক মুশফিকুর রহিম। সব মিলিয়ে ধরেই নেয়া হয়েছিল, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বড় ব্যবধানে হারবে বাংলাদেশ।

টাইগাররার হেরেছেও। তবে বড় ব্যবধানে নয়। স্বল্প পুঁজি নিয়েও বুক চিতিয়ে লড়েছেন তারা। একে একে কিউদের পতন ঘটান ৮ উইকেটের। স্বাভাবিকভাবেই ছড়ায় উত্তেজনা, রোমাঞ্চ। শেষ পর্যন্ত ১৭ বল বাকি থাকতে ২ উইকেটের শ্বাসরুদ্ধকর জয় তুলে নেয় ব্ল্যাক ক্যাপসরা।

তারা ম্যাচ জিতেছে ঠিকই। তবে ক্রিকেট সংশ্লিষ্টদের মন জয় করেছে মাশরাফিবাহিনী। নখ কামড়ানো ম্যাচ হারলেও লড়াকু মানসিকতার জন্য বিশ্বব্যাপী বাহ্বা পাচ্ছেন তারা। হেরে কিছুটা ব্যাকফুটে চলে গেলেও প্রশংসায় পঞ্চমুখ লাল-সবুজ জার্সিধারীরা। একের পর এক ক্রিকেট বিশ্বের রথী-মহারথীর প্রশংসা কুড়াচ্ছেন তারা।

দেশের কোটি ক্রিকেটপ্রেমীর সমর্থন তো আছেই। মাঠে ও মাঠের বাইরে প্রবাসী সমর্থকরাও অকুণ্ঠ সমর্থন দিয়ে যাচ্ছেন।

সবাই সোশ্যাল মিডিয়ায় বাংলাদেশকে নিয়ে সোচ্চার। তাদের বার্তায় স্পষ্ট, মাশরাফির দল এখন মোটেও কোনো সহজ প্রতিপক্ষ নয়। ইতিমধ্যে অনেকে তাদের ডার্ক হর্স হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন।

দারুণ রোমাঞ্চকর এই ম্যাচের পর বাংলাদেশের প্রশংসা করেছেন সাবেক ইংলিশ অধিনায়ক এবং জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার নাসের হুসেইন।

নিজের অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্টে একটি বার্তায় তিনি জানিয়েছেন রোমাঞ্চ সৃষ্টি করার জন্য ৩৮০ রানের প্রয়োজন নেই, বরং ২৪৪ রানও কখনো কখনো যথেষ্ট।
হুসেইন লিখেছেন, ‘একটি ওয়ানডে ম্যাচ রোমাঞ্চকর করতে ৩৮০ রানের প্রয়োজন নেই আপনার…২৪৪ রানও সেটি করতে পারে।’

এদিকে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসিও এই রোমাঞ্চকর ম্যাচ নিয়ে টুইট করেছে তাঁদের অফিসিয়াল অ্যাকাউন্টে। স্নায়ুক্ষয়ী ম্যাচ হিসেবে আখ্যা দিয়ে তারা লিখেছে,

‘স্নায়ুক্ষয়ী এই ম্যাচে শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ লড়াই করে গিয়েছে, তবে যেভাবেই হোক নিউজিল্যান্ড ২ উইকেটে জয় পেয়েছে।’

বাংলাদেশের লড়াকু পারফরম্যান্সের ভূয়সী প্রশংসা করছেন খোদ ভারতের বর্তমান অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

টুইটবার্তায় তিনি জানিয়েছেন, মাশরাফি-সাকিবরা অবিশ্বাস্য ক্রিকেট খেলছে। যদি তারা সেমিফাইনালে যায়, (শেষ চারে খেলার ছাড়পত্র পায় বা টিকিট কাটে) আমি মোটেও অবাক হবো না।

এদিকে ম্যাচ শেষে মাশরাফি জানিয়েছেন, আমরা আশাহত নই। এখনো সাত ম্যাচ বাকি। আশা করি, শিগগির কামব্যাক করতে পারব।

বাংলাদেশের পরের ম্যাচ ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। আগামী শনিবার কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেনে ইংলিশদের মুখোমুখি হবে টাইগাররা। স্বাগতিকদের হারিয়ে তারা এখন ফ্রন্টফুটে ফের আসতে পারেন কি না-তাই দেখার।