`শামীম ওসমানের স্বপ্নের ঈদ জামাত’ চলছে শেষ প্রস্তুতি

আজকের নারায়নগঞ্জ ডেস্ক: নারায়নগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমানের স্বপ্ন দেশের অন্যতম বৃহৎ  ঈদ জামাতের লক্ষ্যে কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দান এবং এ কে এম সামছুজ্জোহা স্টেডিয়াম সমন্বয়ে প্যান্ডেলের প্রস্তুতি প্রায় শেষের দিকে।

আগামীকাল মঙ্গলবার বিকেলের মধ্যেই কাজ সম্পন্ন করে পুরো জামাতস্থল প্রশাসনের নিরাপত্তা বেস্টনীর আওতায় আনা হবে।

এই ঈদ জামাতে দেড় লক্ষাধিক মুসুল্লির সমাগমের আশাবাদ ব্যক্ত করে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থার কথা জানিয়েছেন সংসদ সদস্য শামীম ওসমান এবং জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া।

সোমবার (৩জুন) বিকেলে এ কে এম সামছুজ্জোহা স্টেডিয়ামে আয়োজিত ঈদ জামাতের প্রস্তুতি দেখতে পরিদর্শনে আসেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব একেএম শামীম ওসমান ও জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া।

তাদের সাথে পরিদর্শনে ছিলেন র‌্যাব-১১’র সিও লেফটেনেন্ট কর্ণেল কাজী শাসমের উদ্দিন চৌধুরি, বিজিবি’র স্থানীয় ৬২ নম্বর ক্যাম্পের অধিনায়ক লেফটেনেন্ট কর্ণেল আল আমিন, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক তানভীর আহম্মেদ টিটু, জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নূরে আলম সহ বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থাসহ আইন শৃংখলা বাহিনীর উর্ধতন কর্মকর্তারা।

এমপি শামীম ওসমান ও জেলা প্রশাসক রাব্বি মিয়া এ সময় ঈদ জামাতস্থলের বিভিন্ন স্থান ঘুরে দেখেন এবং প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সাথে এ ব্যাপারে আলাপ আলোচনা করেন।

শামীম ওসমান গণমাধ্যমকে জানান, তিনি আশা করছেন এই ঈদ জামাত দেশের সবচেয়ে সুন্দর আয়োজনের এবং অন্যতম বৃহৎ জামাত হবে। ভবিষ্যতেও এর ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে জেলা প্রশাসক সহ নারায়ণগঞ্জবাসীর প্রতি আহবান জানান তিনি।

জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া জানান, কমপক্ষে দেড় লক্ষাধিক মুসুল্লি সমাগমের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে সে অনুযায়ী জামাত স্থলকে পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি, আনসার, ফায়ার সার্ভিস ও বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সমন্বয়ে নিরাপত্তা বেস্টনির আওতায় রাখা হবে।

এর ধারাবাহিকতা রক্ষার জন্য ঈদের পর সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থার সমন্বয়ে একটি কমিটি গঠন করে এ ব্যাপারে স্থায়ী পদক্ষেপ নেয়া হবে বলেও জানান তিনি। তিনি জানান, সকাল সাড়ে ৮টায় শুরু হবে ঈদুল ফিতরের এই বৃহত্তর জামাত।

গত এক সপ্তাহ ধরেই শহরের ইসদাইর এলাকায় এ কে এম সামছুজ্জোহা স্টেডিয়ামে চলছে এই বৃহৎ ঈদ জামাতের আয়োজনের কাজ। পবিত্র মদীনা শরীফের আদলে স্টিল স্ট্রাকচারের মাধ্যমে প্রায় পৌনে দুই লক্ষ বর্গফুট এলাকা জুড়ে প্যান্ডেল করা হয়েছে।

সৌন্দর্য বর্ধনের জন্য প্রধান ফটকে আকর্ষণীয় তোরণ নির্মান, প্যান্ডেলের অভ্যন্তরে কার্পেটিং, জামাতের ইমামের জন্য মিম্বর, পর্যাপ্ত আলোকসজ্জা ও ফ্যানের ব্যবস্থাসহ নানা ধরণের নির্মান কাজ চলছে।

এদিকে ঈদ জামাতকে শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করতে এবং নিরাপত্তা ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ করতে সোমবার দুপুরে কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দান ও এ কে এম সামছুজ্জোহা স্টেডিয়ামসহ জামাতস্থল পরিদর্শন করেন জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ।