পরিবহন চাঁদাবাজ সিন্ডিকেটের আরো ১৯ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব

নিজস্ব প্রতিবেদক(আজকের নারায়নগঞ্জ) : ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে বিভিন্ন পরিবহনে চাঁদাবাজি এবং যাত্রী হয়রানির অভিযোগে চাঁদাবাজ চক্রের ১৯ জনকে আটক করেছে র‌্যাব-১১।

সোমবার(৩জুন) ভোর থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত সদর উপজেলার সোনারগাঁও থানার কাঁচপুর, মদনপুর এবং সিদ্ধিরগঞ্জ থানার শিমরাইল এলাকায় মহাসড়কে চাঁদাবাজির সময় তাদের আটক করা হয়। র‌্যাব এসময় তাদের কাছ থেকে চাঁদাবাজির এক লক্ষ ছয় হাজার টাকা জব্দ করে। ।

আটককৃতরা হলেন- মোশারফ, শামীম, রাব্বী ওরফে বাবর, খোরশেদ আলম ইমন, কাজী এরশাদুজ্জামান, আবদুল কাদের সুমন, জাহাঙ্গীর আলম, আলমগীর হোসেন, আবদুস সালাম, জিয়াউর রহমান, মাহফুজুর রহমান, মহসিন মিয়া, মনসুর আলী, আরশাদ মোল্লা, জহুর আকন্দ, ওমর ফারুক, হুমায়ুন কবীর, হাসান কাউছার এবং মনিরুল ইসলাম।

গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করে প্রেস ব্রিফিংয়ে র‌্যাব-১১ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো: আলেপ উদ্দিন জানান, ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, অজ্ঞাণ পার্টি ও মলম পার্টি সহ সব ধরণের অপরাধ দমনে রমজান মাসের শুরু থেকেই র‌্যাব তৎপর রয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাবের গোয়েন্দা দল ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে বাস, ট্রাক, ট্যাংক লরি ও কাভার্ড ভ্যান সহ বিভিন্ন পরিবহনে চাঁদাবাজ চক্রের তথ্য সংগ্রহ করে। সেই তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব শুক্রবার অভিযান চালিয়ে চাঁদাবাজ চক্রের এই ১৯ জনকে চাঁদা অদায়ের সময় হাতেনাতে আটক করে।

র‌্যাব আরো জানায়, আটকৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে পরিবহন চাঁদাবাজ চক্রের নেপথ্যে যারা নিয়ন্ত্রন করছে তাদের সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করেছে। এই চক্রের নেপথ্যের গডফাদাররা যতোই প্রভাবশালী হোক তাদের কাউকেই র‌্যাব ছাড় দেবে না। অীাটককৃতদের বিরুদ্ধে সোনারগাঁও থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে র‌্যাব জানিয়েছে।

এর আগে গত ৩১ মে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বিভন্ন পয়েন্ট চাঁদাবাজির সময় অর্ধ লক্ষাধিক টাকা সহ পরিবহন চাঁদাবাজ চক্রের ১৩ জনকে আটক করে র‌্যাব।