না‘গঞ্জের নেতৃত্বকে আমরা মানি না মানব না -মুকুল

 

বন্দর প্রতিনিধি:  মহানগর বিএনপির সহ- সভাপতি ও বন্দর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ আতাউর রহমান মুকুল বলেছেন, যে দেশে রাতের আধারে নির্বাচন হয়ে যায় আপনারা কিভাবে আশা করেন সেই দেশে অবাধ ও সুষ্ঠ নির্বাচন অনুষ্ঠানের কথা। এই আওয়ামীলীগ সরকারের আমলে কোন নির্বাচনই সুষ্ঠ হবে না। আমাদের মধ্যে দালাল ঢুকে গেছে,আমাদের দলের মহাসচিবই সরকারের দালালি করছেন। এই দালালী আমরা দেখতে চাই না। আমরা সৎ লোকের রাজনিতি চাই।

বৃহস্পতিবার(৩০মে) বাদ আসর বন্দরের নবীগঞ্জ টি হোসেন গার্ডেনে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৮ তম শাহাদাত বার্ষিকী দেশনেত্রী বেগম খালেদা সুস্বাস্থ্য ও কারামুক্তি কামনায় আলহাজ মো: আতাউর রহমান মুকুল সমর্থক গ্ষ্ঠোীর উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভা, ইফতার ও দোয়ার মাহফিল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, যেহেতু দলের নিষেধ রয়েছে তাই আমাকে দলীয় কমান্ড মানতে হবে । এ ছাড়াও যদি নির্বাচন করতাম তাহলে আপনাদের মামলা হামলার শিকার হতে হতো। আমাকে নিয়ে কেউ কেউ বলেন মুকুল বিএনপিকে ধ্বংস করছে,কই আমিতো দেখিনাই এই মুকুল ছাড়া বন্দরে বিএনপির কোন অনুষ্ঠান হয়েছে। যত বড় বড় অনুষ্ঠান হয়েছে এই মুকুলই করেছে। অন্য কোন নেতাকে আমি দেখিনাই এ রকম অনুষ্ঠান করতে। আমরা বন্দরকে নিয়েই থাকতে চাই। নারায়ণগঞ্জের নেতৃত্বকে আমরা মানি না মানব না।

পরিশেষে তিনি অনুষ্ঠানে মেহমান হিসেবে আগত মহানগর জাতীয় পার্টির সভাপতি ও আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়াম্যান প্রার্থী সানাউল্লৈাহ সানুর জন্য সকলের প্রতি দোয়া কামনা করেন।

মুকুল আরো বলেন,যারা অরিজিনাল ভাবে মরহুম জিয়াউর রহমানকে ভালবাসে তারা বিএনপি করে। এই সমস্ত দালাল দিয়ে বিএনপি চলবে না। বিএনপি হলো জনগনের দল। বাংলার মানুষের নিঃশ্বাসে নিঃশ্বাসে বিএনপি ও জিয়াউর রহমানের নাম। সে দল বাংলাদেশ থেকে মুছানো যাবে না ।

মোঃ আতাউর রহমান মুকুল সমর্থক গোষ্ঠির সভাপতি  আব্দুস সোবহানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের মহাসচিব এড.আনিসুর রহমান মোল্লা । বক্তব্য রাখেন ২১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হান্নান সরকার, ২২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সুলতান আহম্মেদ, ২৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামরুজ্জামান বাবুল, মহানগর বিএনপি নেতা আজহার হোসেন বুলবুল, ২৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর বন্দর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান এড. মাহমুদা আক্তার প্রমুখ। উপস্থাপনা করেন মোস্তকুর রহমান।