গ্রেফতারকৃত ৫ জনই ভুয়া সাংবাদিক,একজনেরই ৯টি এনআইডি !

আজকের নারায়নগঞ্জ ডেস্ক: নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় চাঁদাবাজি মামলা গ্রেফতারকৃত ৫ জনই ভুয়া সাংবাদিক। এর মধ্যে একজনের ৯টি জাতীয় পরিচয়পত্র। তাদের বিরুদ্ধে নতুন করে আর একটি মামলা হচ্ছে বলে ডিবি‘র এস আই আরিফুর রহমান নিশ্চিত করেছেন।

বুধবার (২২ মে) দুপুরে তাদের বিরুদ্ধে সোনারগাঁও থানায় মামলা হচ্ছে জানিয়েছেন ডিবি পুলিশ।

তারা দীর্ঘদিন ধরে সাংবাদিকতার আড়ালে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিদের কাছ থেকে চাঁদাবাজি করে আসছিল তারা। এর আগে রুপগঞ্জের ৩শ ফিট এলাকা থেকে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন বাগেরহাটের শরণখোলা এলাকার হাকিম হাওলাদারের ছেলে বোরহান হাওলাদার জসিম (৩৫), গাজীপুরের উত্তর ছায়াবিথী বারুদা জিএমপি এলাকার আব্দুল হামিদের ছেলে সাইফুল ইসলাম (৪৩), একই এলাকার আবুল কালাম (২৪), নাটোরের লালপুরের আব্দুল বারির ছেলে নাসিরউদ্দিন (৩৭) ও চাঁদপুরের উত্তর মতলবের আব্দুল করিম মিয়ার ছেলে আব্দুল লতিফ সিদ্দিক (৬০)। এ ঘটনায় জসিম উদ্দিন রাজীব (৩৫) নামে একজন পলাতক রয়েছেন।

জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের উপ পরিদর্শক (এসআই) আরিফুর রহমান জানান, তাদের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি ও প্রতারণার অভিযোগে মামলা দায়ের করা হবে। তারা ভুয়া পরিচয়পত্র বানিয়ে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিদের কাছ থেকে চাঁদাবাজি করতো।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয় প্রেরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ২১ মে দুপুর পৌনে ২টায় ডিবির একটি চৌকশ টিম এসআই আরিফুর রহমানের নেতৃত্বে ৫ জন কথিত ভুয়া সাংবাদিক গ্রেফতার করে এবং তাদের নিকট হতে ভুয়া আইডি কার্ড (জাতীয় পরিচয়পত্র) উদ্ধার করা হয়। এর মধ্যে একই ব্যক্তির নামে ৯টি জাতীয় পরিচয়পত্র যার প্রতিটি আইডি নম্বর ভিন্ন ভিন্ন কিন্তু নাম এবং পিতার নাম একই। আবার ঠিকানা ভিন্ন ভিন্ন উল্লেখ আছে।

তিনটি পত্রিকা প্রকাশকের ঘোষণাপত্র (যা একটিতে;সাপ্তাহিক সবুজ বাংলাএকটিতে সাপ্তাহিক সময়ের কন্ঠএবং একটিতে দৈনিক ভোরের ধ্বনি) গুলোতে ম্যাজিস্ট্রেটগণের স্বাক্ষর জাল করে ও অ্যাডভোকেটের স্বাক্ষর জাল করে সীল দেওয়া|

গ্রেপ্তারকৃত ভুয়া সাংবাদিকেরা নিজেদেরকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান, হোটেলদের নিকট বিভিন্ন অনিয়ম ও মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করে ভয়-ভীতি দেখাইয়া টাকা নিত অথ্যাৎ জোর পূর্বক চাঁদা আদায় করত। তারা আরো স্বীকার করে যে, উল্লেখিত পত্রিকাগুলোর কোন নিবন্ধন নাই। উক্ত গ্রেফতারকৃত ভুয়া সাংবাদিকদেরকে ৫দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।