ধর্ষণ ও হত্যা মামলার আসামী সজলকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১১

প্রেসবিজ্ঞপ্তিঃ নরসিংদীর মনোহরদীতে ৫ম শ্রেণীর ছাত্রী ধর্ষণ ও হত্যা মামলার আসামী সজল মিয়া (২০)কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১১।

রবিবার (১ জুলাই) রাতে নরসিংদী জেলার মনোহরদীর পশ্চিম বীরগাঁও এলাকায় অভিযান চালিয়ে র‌্যাব তাকে গ্রেফতার করে।

সোমবার (২ জুলাই) দুপুরে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানায় র‌্যাব-১১’র সিনিয়র এএসপি বিল্লাল হোসেন।

ধৃত সজল মিয়া নরসিংদী জেলার মনোহরদীর পশ্চিম বীরগাঁও এলাকায় মৃত আব্দুল মান্নানের ছেলে।

গত ২৬ জুন নরসিংদী জেলার মনোহরদী থানাধীন কৃষ্ণপুর ইউনিয়নের বীরগাঁও গ্রামের ৫ম শ্রেণী পড়ুয়া ১২ বছর বয়সের স্কুলছাত্রীর লাশ উদ্ধার করা হয়। সে দক্ষিণ চরমান্দালিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নিয়মিত ছাত্রী ছিল। হত্যাকারী ভিকটিমকে হত্যা করে তার বাড়ির অদুরে বাতা ক্ষেতের ভিতর লাশ গোপন করে রাখে।

এই ঘটনায় ভিকটিমের পিতা মোঃ বাবু মিয়া বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির বিরুদ্ধে মনোহরদী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

র‌্যাব তাদের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানায়, ধৃত সজল তাদের জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকারোক্তি প্রকাশ করে জানায়, ভিকটিম বিভিন্ন সময় টেলিভিশন দেখার জন্য তাঁর চাচা সজল মিয়ার বাড়িতে যেত। ঘটনার দিন বিকেল ৪ টায় ভিকটিম সজল মিয়ার বাড়ির পাশ দিয়ে তার নানা রাজু মিয়ার বাড়িতে যাওয়ার জন্য বের হয়। সজল মিয়া জানালা দিয়ে ভিকটিমকে যেতে দেখে তার পিছু নেয় এবং বাড়ির অদুরে জনৈক শামসুদ্দিনের বাতা খেতের ভেতর ভিকটিমকে ধরে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এত বাঁধা প্রদান ও চিৎকার চেচামেচির চেষ্টা করলে সে ভিকটিমের গলা টিপে হত্যা করে লাশ বাতা ক্ষেতের ভিতর লুকিয়ে রেখে চলে যায়।