স্বামী-স্ত্রী ও সাংবাদিক পরিচয়ে ব্ল্যাকমেইলিংয়ের অভিযোগে আটক ৬

আজকের নারায়নগঞ্জ ডেস্ক: নারায়নগঞ্জের চাষাঢ়ায়  পৃথক দুইটি প্রতারক চক্রের ৬ তরুণ-তরুণীকে আটক করেছে এলাকাবাসী। পরে তাদেরকে র‌্যাব-১১’এর সদস্যদের কাছে সোপর্দ করা হয় । তাদের বিরুদ্ধে স্বামী-স্ত্রী ও সাংবাদিক পরিচয়ে পতিতাবৃত্তি ও ব্ল্যাকমেইলিং করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

পতিতাবৃত্তির অভিযোগে আটককৃত সবুজ ও সমরজান সহ তিনজন নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকার বাসিন্দা এবং সাংবাদিক পরিচয়ে ব্লাকমেইল করার চেষ্টার অভিযোগে আটক তিন ভুয়া সাংবাদিক রাকিব, শারমিন ও সাগর রাজধানীর মুগদা এলাকার বাসিন্দা বলে জানা গেছে।

সোমবার(২০ মে) রাতে শহরের উত্তর চাষাঢ়া এলাকার একটি বাড়ি থেকে র‌্যাব-১১‘র সদস্যরা তাদের হেফাজতে নিয়ে যায়।

আটককৃতরা এ সময় র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে তাদের অপরাধ কর্মকান্ডের কথা স্বীকার করে। র‌্যাব তাদের কাছ থেকে ভূয়া জাতীয় পরিচয়পত্র এবং আইডিকার্ড জব্দ করে।

এলাকাবাসী জানান, গত এক মাস আগে স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে সবুজ ও সমরজান চাষাঢ়ার একটি বাড়ির নীচতলার ফ্ল্যাট ভাড়া নেয়। এর আগে সিদ্ধিরগঞ্জের নীট কনসার্ণ নামের একটি গার্মেন্টসে কাজ করার সুবাদে এই দুইজনের মধ্যে পরিচয় ঘটে।

চাষাঢ়ার ওই ফ্ল্যাটে পতিতাবৃত্তিসহ মানুষকে ব্ল্যাকমেইল করে টাকাপয়সা আদায় করা হয় এমন খবর পেয়ে কিডস টিভি নামের অনলাইনভিত্তিক একটি চ্যানেলের সাংবাদিক পরিচয়ে তিন তরুণ-তরুণী তারাবীর নামাজের সময় ওই ফ্ল্যাটে গিয়ে হাজির হয়।

তারা ওই ফ্ল্যাটে ঢুকেই দরজা বন্ধ করে দেয়। ফ্ল্যাটে চার যুবক যুবতীকে উপস্থিত দেখে ক্যামেরায় তাদের ছবি ধারণ করে এবং মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে বন্ধ করে তাদেরকে জিম্মি করে ফেলে। উল্টো তাদেরকে ব্ল্যাকমেইল করার চেষ্টা করে।

এক পর্যায়ে দুই পক্ষের মধ্যে ধস্তাধস্তিও হয়। এসময় হৈচৈ শব্দ শুনে সন্দেহ হলে বাড়ির মালিকসহ এলাকাবাসী এসে তাদেরকে আটক করে র‌্যাবকে জানায়। পরে র‌্যাব ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে ছয়জনকে আটক করে।

এ বিষয়ে র‌্যাব-১১ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আলেপ উদ্দিন জানান, আটককৃতদের আরো জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে তাদের মধ্যে সাংবাদিক পরিচয়ধারী তিন তরুণ-তরুণী মুচলেকা দিয়ে ক্ষমা চাইলে রাতেই তাদেরকে ছেড়ে দেয়া হয়।