বন্দরে আবুল হত্যা: খুনীদের গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ

বন্দর প্রতিনিধি:  বন্দরে নরপদী এলাকার আবুল হোসেন হত্যা মামলার ৫ দিন অতিবাহিত হতে চললেও এখনও হত্যাকারীদের কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি বন্দর থানা পুলিশ।

গত ১১ মে সকালে ভুমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে আপন ফুফাকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসী মোজাম্মেল হক বাবু গংরা। এঘটনার পর থেকে হত্যাকারীরা এলাকা থেকে পালিয়ে যায়। পরে ৩ জনের নাম উল্লেখ করে মৃত আবুল হোসেনের স্ত্রী তাসলিমা বেগম বাদী হয়ে বন্দর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। নরপদী এলাকার মোজাম্মেল হক বাবু, মোহসিনা ও মোস্তফাকে আসামী করে মামলা করা হয়।

নিহত আবুল হোসেন পুরান বন্দর চৌধুরীবাড়ি এলাকার মৃত কফিল উদ্দিন প্রধাণের ছেলে।

ঘটনা সূত্রে জানতে পারা যায়, বন্দর উপজেলাধীন কলাগাছিয়া ইউনিয়নস্থ নরপদি পূর্বপাড়া এলাকায় শুক্রবার সন্ধ্যায় আম গাছকে কেন্দ্র করে আবুল হোসেন ও তার সমন্ধি মোস্তফার পরিবারের সাথে বাকবিতর্ক সৃষ্ঠি হয়। এ নিয়ে মোস্তফা, মোয়াজ্জেম হোসেন বাবু লাঠি সোঁটা নিয়ে আবুল হোসেন ও তার পরিবারের লোক জনকে বেধরক পেটায়। মাড়ামাড়ির ঘটনায় বন্দর থানায় আবুল হোসেনের স্ত্রী তাসলিমা বেগম বাদী হয়ে অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ করায় আসামী পক্ষ ক্ষিপ হয়ে পর দিন সকালে মোজাম্মেল হক বাবু, মোস্তফা মিয়া ও মোহসেনা দেশীয় অস্ত্রসহ আবুল হোসেন ও তার পরিবারের উপর আক্রমণ করে। এসময় তাদের দা-চাপাতির আঘাতে আবুল হোসেন ও তার মেয়েকে গুরুতর অবস্থায় নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিলে। হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক আবুল হোসেনকে মৃত ঘোষনা করে।