জনগণের চাহিদার কারণেই নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হবেন মুকুল!

আজকের নারায়নগঞ্জ ডেস্ক: আসন্ন বন্দর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থীতা প্রসঙ্গে বর্তমান চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা আতাউর রহমান মুকুল বলেছেন, ‘আমি জনগণের চাহিদার কারণেই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করব। দলের সমর্থন নিয়েই স্বতন্ত্র প্রার্থী হব। আমার বিশ্বাস, জনগণ আমার বিগত কর্মকান্ডের বিবেচনায় পুনরায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত করবেন।’

প্রসঙ্গত: আগামী ১৮ জুন নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলা পরিষদের নির্বাচন । বিগত  নির্বাচনে এখানে ক্ষমতাসীন দলের শক্তিশালী প্রার্থীকে পরাজিত করে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন উপজেলা বিএনপির সভাপতি আতাউর রহমান মুকুল। এ নিয়ে দ্বিতীয়বারের মত চেয়ারম্যানের দায়িত্বে রয়েছেন তিনি।

এবারে তিনি হ্যাট্টিক বিজয়ের স্বপ্নে আসন্ন উপজেলা নির্বাচনেও জনগণের ভোটে পুনরায় নির্বাচিত হবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন তিনি। দলীয়ভাবে বিএনপি নির্বাচনে না গেলেও দলের সমর্থন নিয়েই উপজেলা নির্বাচনে অংশ নেবেন বলে জানিয়েছেন মহানগর বিএনপির এই নেতা।

এর আগে টানা দুইবার আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলেও বন্দর উপজেলা নির্বাচনে দুইবারই চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন আতাউর রহমান মুকুল।

দলীয় নেতাকর্মীদের অভিযোগ রয়েছে, সদ্য সমাপ্ত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি এ কে এম সেলিম ওসমানের পক্ষে বিভিন্ন প্রচারণামূলক অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছেন তিনি। নিজের দলীয় প্রার্থীর পক্ষে না থেকে সেলিম ওসমানের পক্ষে সরাসরি ভোট প্রার্থনা করেছেন। সে অনুযায়ী ওসমান পরিবারেরও আলাদা সমর্থন থাকবে তার পক্ষে।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মহাজোটের প্রার্থীর প্রচারণায় অংশ নেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এ কে এম সেলিম ওসমান জনপ্রতিনিধি হিসেবে বেশ ভালো ব্যক্তিত্ব।’ এ প্রসঙ্গে তার সঙ্গে ব্যক্তিগত সুসম্পর্কের কথা তুলে ধরেন এই বিএনপি নেতা। গত বৃহস্পতিবার পঞ্চম ধাপে ১৯টি উপজেলা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন।