ভয়ার্তকন্ঠে ফেসবুকে লাইভ দেয়া রাশেদ তথ্যপ্রযুক্তি আইনে গ্রেফতার

 

আজকের নারায়নগঞ্জঃ রাজধানীর শাহবাগ থানায় তথ্যপ্রযুক্তি আইনে করা মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা রাশেদ খাঁনকে। রোববার দুপুরে সাড়ে ১২টার দিকে তার মিরপুরের বাসা থেকে তাকে তুলে নেয়া হয়।
শাহবাগ থানার ওসি আবুল হাসান বিষয়টি গনমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, থানায় রাশেদ খাঁনের বিরুদ্ধে আইসিটি আইনে মামলা রয়েছে। এ মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।
এর আগে দুপুর পৌনে একটার দিকে রাশেদের মিরপুর-১৪ নম্বরের ভাসানটেক বাজার এলাকার বাসা থেকে ডিবি পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ করেছিলেন তার স্ত্রী রাবেয়া সুলতানা আলো।
আটকের আগে বিষয়টি নিয়ে রাশেদ খাঁন তার ফেসবুকে একটি ভিডিও পোস্ট করেন। যেখানে দেখা যায় ভয়ার্ত কণ্ঠে রাশেদ বলছেন: গেট ধাক্কা দিচ্ছে, গেট ধাক্কা দিচ্ছে, আমাকে তুলে নিয়ে যাবে। আমাকে গুলি করে মেরে ফেলবে, গেট ধাক্কা দিচ্ছে পুলিশ। কেউ বাঁচান আমাকে কেউ বাঁচান। মিরপুর ১৪ ভাসানটেক বাজার এলাকার এই বাসা থেকে আমাকে তুলে নিয়ে যাচ্ছে। আমাকে বাঁচান।
কোটা আন্দোলনের কেন্দ্রীয় নেতা ফারুক হাসান গনমাধ্যমকে জানান, মিরপুর-১৪ এর মজুমদার মোড়ের ১২ নম্বর বাসা থেকে তাকে তুলে নেয়া হয়। রাশেদকে তুলে নিয়ে গেছে ডিবি। আমরা ডিবির সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছি।
সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর শনিবার হামলা চালায় ছাত্রলীগ। সেসময় আন্দোলনে নেতৃত্ব দেয়া নূরুল হকসহ অন্তত ছয়জন আন্দোলনকারী আহত হয়েছেন।
হামলার প্রতিবাদে আজ রোববার বেলা ১১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়া দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয় ও বড় কলেজে মানববন্ধন এবং সোমবার সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিক্ষোভের ডাক দেয়া হয়।