জামিন পেলেন আ‘লীগ নেতা হাজী গিয়াসউদ্দিন

আইন-আদালত(আজকের নারায়নগঞ্জ): নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার রামারবাগে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনায় আওয়ামীলীগ নেতা গিয়াসউদ্দিন  ও আজমতসহ ২৩ জনের জামিন মঞ্জুর করেছে আদালত।

বুধবার (৮ মে) অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট অশোক কুমার দত্তের আদালতে আত্মসমর্পন করে জামিন আবেদন করলে আদালত আবেদন মঞ্জুর করেন।

মামলায় আসামী পক্ষের আইনজীবী এপিপি মিজানুর রহমান জানান, উচ্চ আদালত থেকে নেয়া ৪ সপ্তাহের জামিনের সময় শেষে নিন্মকোর্টে আত্মসমর্পন করে মামলার আসামীরা। আদালত আসামীদের মেডিকেল সার্টিফিকেট দাখিলের সময় পর্যন্ত জামিন মঞ্জুর করেন।

গত ২৩ এপ্রিল আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গিয়াসউদ্দিন সমর্থকদের সাথে নব্য আওয়ামীলীগার হিসাবে পরিচিত স্পিডবোট মোস্তফা ও তার বেয়াই বিএনপি নেতাতৈয়বুর রহমানের গ্রুপের সাথে সংঘর্ষ ঘটে।

এ ঘটনায় মামলায় আসামী করা হয় আজমত আলী, গিয়াসউদ্দিন গেসু, মনির হোসেন মুরাদ, রাজিব, সজিব, জুয়েল, খন্দকার শাওন, জসিম, আশ্রাফ, ফয়সাল, রিপন, নাঈম, দেলোয়ার, শাকিল, হ্নদয়, শহিদ, ইমন, সোহেল, সানি, রাজু, তাহের আলী, সোলেয়মান, রহিম বাদশা, শামীম, ডালিমসহ অজ্ঞাতনামা আরো ২৫/৩০জন।

জানা গেছে,রামারবাগ ও আশপাশ এলাকায় প্রাধান্য বিস্তারের চেষ্টায় নব্য আওয়ামীলীগার মোস্তফা ও বিএনপি নেতা তৈয়বুর অপতৎরতা চালিয়ে আসছিল। এ অবস্থায় বিভিন্ন সময়ে গিয়াসউদ্দিন সমর্থকদের উস্কনিমূলক আচরন সহ বিভিন্ন সময় মারধর করেও আসছিল প্রতিপক্ষ।

এরই ধারাবাহিকতায় দু‘গ্রুপের মধ্যে ২৩ এপ্রিল সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। তবে সেই সংঘর্ষ চলাকালীন সময়ে গার্মেন্ট ব্যবসায়ী গিয়াসসউদ্দিন ও তার ভাই আজমত উপস্থিত না থাকলেও তাদেরকে হেয় প্রতিপন্ন করতে এবং এলাকার আধিপত্য নিয়ন্ত্রনে নিতেই মোস্তফা-তৈয়বুর উদ্দেশ্রপ্রনোদিতভাবে মামলায় জড়িয়ে হয়রানির চেষ্টা করে বলে গিয়াসউদ্দিন গ্রুপের দাবী।