নাজিম অনুসারী চাদাঁবাজের নির্যাতনের শিকার ইজিবাইক চালক

আজকের নারায়নগঞ্জঃ    ইজিবাইক থেকে চাঁদা না পেয়ে মিলন নামে এক চালককে বেধড়ক পিটিয়েছে সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান নাজিম উদ্দিনের লোক পরিচয়দানকারি একটি চক্র। শনিবার (৩০ জুন) দুপুরের দিকে সিদ্ধিরগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

চাঁদাবাজদের পিটুনিতে আহত ইজিবাইক চালক বাদি হয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় রাসেল ও রাজ্জাকসহ বেশ কয়েকজনকে অভিযুক্ত করে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছে।

ঘটনার বিবরণে জানা গেছে, শনিবার দুপুরের দিকে ইজি বাইক চালক মিলন বেশ কয়েকজন যাত্রী নিয়ে সাইনবোর্ড এলাকায় পৌছালে ইজিবাইক মালিক শ্রমিক ঐক্যজোটের ব্যানারে তাঁর কাছ থেকে চাঁদা দাবি করে রাসেল। মিলন চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে রাসেল, রাজ্জাকসহ নাজিম উদ্দিনের বেশ কয়েকজন লোক তাঁকে পিটিয়ে আহত করে। মারাত্মক আহত মিলন খানপুর ৩’শ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে বলে জান গেছে।

ব্যাটারী চালিত অটোরিক্সা-ইজিবাইক মালিক শ্রমিক সংগ্রাম পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক শ্রমিক নেতা আজিজুল হক বলেন, সাইনবোর্ডে ইজি বাইক চালকরা ভাইস চেয়ারম্যান নাজিম উদ্দিনের লোকজনের দ্বারা অত্যাচারের শিকার হন। শ্রমিকদের কোনো উন্নয়ন না করে তারা নিজেরা পকেট ভরার কাজে লিপ্ত থাকে সব সময়। ইজি বাইক চালকদের জন্য কোন কল্যান ফান্ডও নেই নাজিম উদ্দিন ও তার লোকজনদের।

এব্যাপারে সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান নাজিম উদ্দিনের মোবাইলে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি তাঁর মুঠোফোনটি রিসিভ করেননি।

এব্যাপারে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় রাতে যোগাযোগ করা ডিউটি অফিসার বলেন,একজন ইজি বাইক চালক একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। তদন্ত করে তদন্ত কর্মকর্তা আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

সূত্র বলছে, দীর্ঘদিন ধরেই এই এলাকায় চলাচলরত ইজিবাইক থেকে চাঁদা আদায় করছে রাসেল ও রাজ্জাকসহ কয়েকজন চাঁদাবাজ। তাঁরা নিজেদের সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান নাজিম উদ্দিনের লোক হিসেবেই পরিচয় দিয়ে থাকে। স্থানীয়রাও জানেন তাঁরা নাজিম উদ্দিনের লোক।

স্থানীয়রা বলছেন, কোনো রকম নিয়ম না থাকলেও ইজিবাইক চালকদের কাছ থেকে ওই চক্রটি জোরপূর্বক চাঁদা আদায় করে। জেলা পরিষদ থেকে সাইনবোর্ডে চলাচলকারি ইজি বাইক থেকে রসিদের মাধ্যমে চাঁদা আদায় করা হয় বলে জানা গেছে।