মেসি-ম্যাজিকই পারে আর্জেন্টিনাকে টেনে তুলতে

ক্রীড়া ডেস্ক: গুমোট পরিবেশ এখন কেটে গিয়েছে আর্জেন্টিনা শিবিরে। ক্রোয়েশিয়া ম্যাচে হারের পর একসময় পাহাড় প্রমাণ চাপে পড়ে গিয়েছিলেন মেসিরা। আর্জেন্টিনার সাজঘরে অশান্তির পরিবেশ নিয়ে একের পর খবর ছড়িয়েছিল সংবাদমাধ্যমে। শোনা যাচ্ছিল, রীতিমতো দ্বিধাবিভক্ত হয়ে গিয়েছে সাম্পাওলির সংসার। দুটি শিবির, একটি মেসিদের মতো সিনিয়র ফুটবলারদের নেতৃত্বে, আরেকটি কোচ সাম্পাওলির নেতৃত্বে। একসময় নাকি কোচ সাম্পাওলির অপসারণও চেয়েছিলেন লিও মেসিরা। নক-আউটে উঠতেই ছবিটা যেন বদলে গেল।
ফ্রান্সের বিরুদ্ধে মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগে আর্জেন্টিনা শিবির এখন ফুরফুরে। অনুশীলনে গেলে দেখা যাচ্ছে, মেসিরা নিজেদের মতো হাসাহাসি করছেন। নিজেদের মধ্যে খেলছেন, কেউ ভুল পাস করলে তাঁকে শাস্তি পেতে হচ্ছে। কেউ কেউ আবার ইচ্ছেমত ‘শিস’ দিয়ে সুর বাঁধছেন। এর আগে আর্জেন্টিনা শিবিরের এ ছবি ভাবাই যেত না। তবে, এসবের মধ্যেও একটা জিনিস স্পষ্ট হয়ে গেল, দলের রাশ এখনও পুরোপুরি মেসি-মাসচেরানোরদের হাতেই। কারণ অনুশীলনের ফাঁকে বারবার কোচকে দেখা গেল দুই সিনিয়র তারকার সঙ্গে কথা বলতে, আলোচনা করতে। প্রথম একাদশ কী হবে তা হয়তো আজও ঠিক করবেন মেসি-মাসচেরানোরাই।

সংঘবদ্ধ ফ্রেঞ্চ টিমের বিরুদ্ধে আর্জেন্টিনার দলে বড় বেশি পরিবর্তন হওয়ার সম্ভাবনা নেই, তবে অনুশীলনে দেখা গিয়েছে মেসিকে ফলস-নাইন হিসেবে খেলতে। এতে অনেকে মনে করছেন শক্তিশালী ফ্রান্সের মিড-ফিল্ডকে রুখতে আক্রমণে একা মেসিকে রেখে মিডফিল্ডে লোক বাড়াতে পারে আর্জেন্টিনা। যদিও, নীল-সাদা শিবির থেকে তেমন কোনও খবর পাওয়া যায়নি। এবারের বিশ্বকাপের অন্যতম দাবিদার ফ্রান্স। দলের প্রতিটি পজিশনে নামী ফুটবলার রয়েছে ফ্রান্স দলে। এহেন দলের বিরুদ্ধে কোচ সাম্পাওলির একমাত্র ভরসা মেসিই।

বিশেষজ্ঞরাও বলছেন একমাত্র মেসি-ম্যাজিকই পারে এই ফ্রান্স দলের বিরুদ্ধে আর্জেন্টিনাকে টেনে তুলতে। যদিও ফ্রান্স অধিনায়ক হুগো লরিস আর্জেন্টিনাকে ওয়ান ম্যান আর্মি বলতে নারাজ। তিনি বলেন, “মেসিকে ঘিরে প্রত্যাশা খুব বেশি, আর সেটাই স্বাভাবিক। তবে আমি মনে করি এই আর্জেন্টিনা দলটায় মেসি ছাড়াও অনেকে আছেন, যাদের অনেক কিছু প্রমাণ করার আছে। আমাদের জন্য এটা কঠিন ম্যাচ হতে চলেছে, আরও ভাল খেলতে হবে।” বিশেষজ্ঞরা বলছেন, একমাত্র মেসিকে বাদ দিলে সব পজিশনেই আর্জেন্টিনার থেকে অনেক উন্নত মানের ফুটবলার রয়েছে ফ্রান্সের কাছে। একথা মানছেন আর্জেন্টাইন কোচ সাম্পাওলিও। তিনি বলেন, “আমরা এমন একটা দলের বিরুদ্ধে নামতে চলেছি যার প্রত্যেক ফুটবলারের ব্যক্তিগত নৈপুণ্য অসাধারণ। আমাদের গোটা ম্যাচ ধারাবাহিকভাবে ভালো খেলতে হবে”। মেসি যদি আটকে যান, তাহলে কাজটা অনেকটাই সহজ হয়ে যাবে দিদিয়ের দেশঁ-র ফুটবলারদের জন্য। আর কোচ দেশঁ-ও চাইছেন যেন-তেন-প্রকারেণ মেসিকে আটকে দিতে। গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে দলের প্রথম সারির তারকাদের বিশ্রাম দিয়েছিলেন দেশঁ। আজ মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে ফিরছেন পোগবা, এমবাপে,কন্তেরা। প্রথম একাদশ বিচার করে অনেক বিশষজ্ঞই এগিয়ে রাখছেন ফ্রান্সকে। তবে, সব অঙ্কই বদলে দিতে পারেন লিও মেসি।