অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে স্ত্রীকে গণধর্ষণঃ দুই ধর্ষকের স্বীকারোক্তি

সংবাদদাতা,বন্দরঃ স্বামীর গলায় ধারালো অস্ত্র ঠেকিয়ে স্ত্রীকে গণধর্ষণের ঘটনায় বাপ্পী (২২) নামে আরেক ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে বন্দর থানার কলাগাছিয়া ইউনিয়নের জিওধরা এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত বাপ্পী বন্দর থানার জিওধরা এলাকার ই¯্রাফিল মিয়ার ছেলে। এ নিয়ে দুই ধর্ষককে গ্রেফতার করা হল। দুজনেই আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে বলে পুলিশ জানায় ।
বন্দরের স্বল্পেরচক এলাকা থেকে রোববার বিকেলে স্বামী ও স্ত্রী সাবদী এলাকায় ঘুরতে যায়। রাত ৮টার দিকে তারা অটোরিকশায় বাড়ীতে রওনা হয়ে সাবদী ব্রিজে এলে শহরের নিতাইগঞ্জ এলাকার কাশেম মিয়ার ছেলে তুহিন ও বন্দর থানার জিওধরা এলাকার ইস্রাফিল মিয়ার ছেলে বাপ্পীসহ কয়েকজন বখাটে অটোরিকশার গতিরোধ করে।বখাটেরা তাদের পরিচয় জানতে চায়। স্বামী ও স্ত্রী পরিচয় দেওয়ার পরও বখাটেরা তাদেরকে চেয়ারম্যানের কাছে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে সাবদী এলাকা থেকে সেলসারদী এলাকায় নিয়ে যায়। এরপর বখাটেরা স্বামী ও স্ত্রীকে অটোরিকশা থেকে নামিয়ে একটি ফুল বাগানে নিয়ে যায়। সেখানে স্বামীর গলায় ধারালো ছুরি ঠেকিয়ে তার সামনেই স্ত্রীকে একের পর এক গনধর্ষণ করে।
ধর্ষিতা বিষয়টি বন্দর থানা পুলিশকে জানালে পুলিশ ঘটনার রাতে তুহিনকে গ্রেফতার করে। পরে মঙ্গলবার রাতে কলাগাছিয়া ইউনিয়নের জিওধরা এলাকা থেকে বাপ্পী নামে আরও এক ধর্ষককে গ্রেফতার কওে পুলিশ। এ ব্যাপারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা তারিকুল ইসলাম জানান, ধর্ষক তুহিন ও বাপ্পীকে আদালতে প্রেরণ করা হলে তারা বিজ্ঞ আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে।