পলাশের দাবীঃ ‘শ্রমিক অসন্তোষের নেপথ্যে ভিন্ন একটি ষড়যন্ত্র জড়িত’

 

আজকের নারায়নগঞ্জঃ শ্রমিকলীগ কেন্দ্রীয় শ্রমিক উন্নয়ন ও কল্যান বিষয়ক সম্পাদক কাউছার আহমেদ বলেছেন,বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার শ্রমিক বান্ধব সরকার। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে যখন সমগ্র দেশ উন্নয়নের মহাসড়কে ছুটে চলেছে,ঠিক সেই মুহুর্তে কুচক্রিমহল বিভিন্ন ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির পায়তারা শুরু করেছে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে শ্রমিকলীগের একজন সদস্য হিসাবে আমরা তা বরদাশত করবো না। যত বড় অপশক্তিই আসুক শ্রমিক-জনতার সংগ্রামে ধুলিস্যাত হয়ে যাবে।

 তিনি আরো বলেন,“শ্রমিক অসন্তোষের নেপথ্যে ভিন্ন একটি ষড়যন্ত্র জড়িত। সামনে নির্বাচন আর এসময় পরিকল্পিতভাবে একটি পক্ষ মালিক ও শ্রমিকদের মধ্যে দ্বন্দ্ব সৃষ্টি করে সরকারকে বেকায়দায় ফেরার চেষ্টা করছে। আমি এসব ঘটনায় নেপথ্য কারণ উদঘাটনের জন্য সরকারের উচ্চপর্যায় থেকে তদন্তের দাবি করছি।”

এছাড়া তিনি বলেন, “খবর পেয়ে যখন থানায় যাচ্ছিলাম তখন বিএকএমইএর সভাপতি সাংসদ সেলিম ওসমান সাহেব থানা থেকে বের হয়ে আসছিলেন। পথে শুধু তিনি আমাকে জানালেন ‘এ ব্যাপারে সুষ্ঠু সমাধানের ব্যবস্থা করা হবে। সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তোমাকে পরে ফোনে জানানো হবে।”

পলাশ হুশিয়ারী দিয়ে বলেন,সাকুরা গার্মেন্টসের মালিকপক্ষ শান্তিপূর্ণ শ্রমিকদের উপরে হামলা করে পরিস্থিতি অশান্ত করে তোলার চেষ্টা করছে। শ্রমিকদের বেতন-ভাতাসহ পাওনা পরিশোধে গড়িমসি করছে। আগামী বৃহস্পতিবারের মধ্যে যদি নির্যাতিত শ্রমিকের উপরে হামলাকারীর বিচার না হয়, যদি শ্রমিকদের বেতন-ভাতা সঠিকভাবে পরিশোধ করা না হয়,তাহলে আগামী শনিবার থেকে ৭৪ শ্রমিক সংগঠনের নেতা-কর্মীরা মাঠে নেমে আসবে। দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলে অপশক্তিকে প্রতিহত করা হবে।